মৃত্যু

প্রকাশিত: ২:১৫ অপরাহ্ণ, মে ২৯, ২০২০

মৃত্যু

কাজল দেব

চোখের জ্যোতি ম্রিয়মান, হৃৎস্পন্দন কমে আসছে
রেডিয়াল ধমনীতে রক্তের চাপ নেই, ভারি নিঃশ্বাস
শত চেষ্টায় স্বরযন্ত্রে শব্দ সৃষ্টি হচ্ছে না,ঘনীভূত অন্ধকার
প্রশ্বাসের বাতাসে ভাসমান অক্সিজেন বড্ড অপ্রতুল
ধীরে বাহিত রক্ত কোষ থেকে কোষে পৌঁছয় না,

চিরচেনা মুখগুলো অস্পষ্ট,সবাই দূরে সরে যাচ্ছে
চোখের ইশারায় বুঝাতে চাওয়া কিন্তু পারছি না
অক্ষিপক্ষ নতজানু, চোখের পাতা ও বন্ধ হয়ে আসছে
নিম্নবাহুর পেশিগুলো ক্রমশই দূর্বল হয়ে পড়ছে,
অনেক চেষ্টা ছিল পা দুটো নাড়ানোর কিন্তু অসাড়
উর্দ্ধবাহু ও নাড়াতে অক্ষম,অসহায় নির্বাক রোদন

কতই দোর্দণ্ড প্রতাপ ছিল, দাপটে বিচরণ সর্বত্র
কণ্ঠস্বরের দৃঢ়তায় ছিল শাসন,ছিল শৃংখল ভাঙ্গার আহ্বান,
আজ অবসান হচ্ছে সবকিছুর;আনন্দ,গৌবর এবং কলংকের
মনে পড়ে অস্থির ছুটে চলার দিন, ছিল আত্মার আহুতি
পরিবার, সমাজ বা প্রেয়সী কারো জন্যই পিছুটান ছিল না
ছিল অর্থ আর সুনামের একচ্ছত্র প্রভাব; ক্লান্তহীন ছুটে চলা,

চোখ গুলো স্থির,হঠাৎ ঘরের সিলিং এর দিকে দৃষ্টিপাত ,
মনে হচ্ছে বিভৎস চেহারার কে যেন ডাকছে!
হার্ট বিট আবার ও উর্দ্ধ মুখী,গভীর ভারী নিঃশ্বাস
ফুসফুসের বায়ুকুঠুরীতে বাতাসের বিনিময় প্রায় বন্ধ
এতোদিন যে হাত ছিল মুষ্টিবদ্ধ তাতে আজ কিছুই অবশিষ্ট নেই
নেই অহংকারের শেষ বিন্দু,নেই আত্মস্লাঘায় আত্মপ্রচার
নিবু নিবু প্রদীপের জ্বলে থাকার প্রাণান্ত চেষ্টা,

হঠাৎ উপবিষ্ট লোক কি যেন বলাবলি শুরু করছিল , বাতাসে ক্রন্দনরোল
হ্দযন্ত্র আর পাম্প করছে না, নিঃশ্বাস স্থিমিত
ধোপকাটির ধোঁয়া চারপাশে,চোখের মনিগুলো স্থির
পাদটীকা লেখা হলো, অসীমে লীন সবকিছু ।।।।

Death

Kajal Deb

The light in the eyes is disconsolate, the heart rate is decreasing
There is no blood pressure in the radial arteries, breathing too is heavy,
Despite hundreds of attempts,my larynx fails to produce sounds,there’s concentrated darkness
The oxygen floating in the respiratory air is insufficient
Slowly carried blood does not reach from cell to cell,

Ever familiar faces are blurred, everyone is moving away
Tried to make them understand by winks but I couldn’t
The eyebrows are kneeling, the eyelids are too closing
The lower arm muscles are getting weaker and weaker,
There were many attempts to move the legs but they were numb;
Upper arms are also unable to move, helpless silent crying

How dreadful was the prowess, the dominance was everywhere
There’s despotism in the firmness of the voice, was an appeal to break the chain,
Today, everything is coming to an end; joy, pride and stigma,
I remember the day of restless running, the entreaty of the soul
There was no backwardness for family, society or loved one
There was an imperium on money and reputation; was tireless running,

Eyes’re fixed,suddenly I gazed at the ceiling,
It’s seeming someone with a horrible look is calling!
Once again heartbeat goes upward,breathing was deep and heavy
The exchange of air in the alveoli of the lungs is almost stopped;
There was nothing left today in the hand that was fisted for so long;
There was no last end of arrogance, no braggadocio of self-advocacy,
A lamp was about to extinguish tried desperately to keep burning,

Suddenly sitting people started discussing, I heard crying in the air
The heart was no longer pumping, breathing was stagnant
Holy smoke was all around, the eyeballs were fixed
The footnote was written,everything disappeared in infinite

ছড়িয়ে দিন