মেয়ে সন্তান ও আমাদের সমাজের ভাবনা — রোকসানা আক্তার সহকারী শিক্ষক( জীববিজ্ঞান)

প্রকাশিত: ৯:০৪ অপরাহ্ণ, মে ১৩, ২০২২

মেয়ে সন্তান ও আমাদের সমাজের ভাবনা —  রোকসানা আক্তার  সহকারী শিক্ষক( জীববিজ্ঞান)

মেয়ে সন্তান ও আমাদের সমাজের ভাবনা —

রোকসানা আক্তার
সহকারী শিক্ষক( জীববিজ্ঞান)

বিষয়টি নিয়ে অনেক দিন থেকে লিখবো ভেবে আসছি। একটা বাস্তব ঘটনা দিয়ে শুরু করছি।

কবির মিয়া( ছদ্মনাম) প্রবাসী কয়েকবছর থেকে। তিন সন্তান, মা ও স্ত্রী দেশে থাকে।বিদেশে মোটামুটি ভালো আয় তার।এইচএসসি পরীক্ষা পাশের পর থেকে সে মেয়ের বিয়ে নিয়ে অস্থির হয়ে আছে। আত্মীয় স্বজনদের কাছে ফোন করে মেয়ের জন্য পাত্র দেখতে বলছে। কেউ ভালো খবর না দেওয়ায় নিজেই দেশে এসেছেন মেয়ের বিয়ে দিতে।

ঘটক ধরে, আত্মীয় স্বজনকে বলে শুরু হয়েছে পাত্র খোঁজা। ঘটা করে মেয়ে দেখতে আসা মানুষের জন্য প্রচুর খরচও হয়েছে তার।মেয়ের এটা ভালো না,ওটা ভালো না,বাবার সম্পদ কম ইত্যাদি অজুহাতে দেখে চলে যাচ্ছে পাত্র পক্ষ।

মেয়ে পড়ালেখায় ভালো। ছেলের কম পড়ালেখা শুনলে মেয়েও রাজি হচ্ছে না।

দেখতে দেখতে আবার প্রবাসে ফিরে যাওয়ার সময় চলে আসল করিম মিয়ার। দিশেহারা অবস্থায় পরলেন তিনি। কি করবেন তা নিয়ে খাওয়া, ঘুম সবই অসহ্য মনে হতে লাগলো তার।আত্মীয় স্বজনের কাছে ফোন করে শুরু করে দেন কান্নাকাটি।

এ যেন এক মহাবিপদে পরেছেন তিনি।

তিনি মেয়েকে কোনোমতে বুঝিয়ে এসএসসি পরীক্ষায় বসতে পারেনি এমন এক ছেলের সাথে বিয়ের আয়োজন করলেন।

বিয়ে দিয়েও দিলেন।

বাস্তব একটা ঘটনা জানলেন এতোক্ষণ।

এবার আসি আসল কথায় —

এই অস্থিরতা যদি থাকতো মেয়েকে স্বাবলম্বী করার জন্য!!

কবে দেখবো সেই দিন??

আমাদের সমাজে এখনও মেয়ে বড় হওয়ার সাথে সাথে প্রথমেই চিন্তা করা হয় তাদেরকে ভালো পাত্রের সাথে বিয়ে দেওয়ার কথা। তাদেরকে স্বাবলম্বী করে গড়ে তোলার কথা এখনও সবাই ভাবতে পারছেন না।

আমি বলছি না সবাই এটা করছেন।অনেক বাবা-মা মেয়েদের স্বাবলম্বী করে গড়ে তুলতে প্রয়োজনীয় সকল ব্যবস্থা নিচ্ছেন। কিন্তু শতকরা কয়জন এটা করছেন।

এই সময়ে, এই যুগে শতকরা ১০০ ভাগ মেয়ে স্বাবলম্বী হয়ে উঠা প্রয়োজন।

এই বিষয় নিয়ে আমাদের সম্মানিত শিক্ষকবৃন্দকে ভাবতে হবে। শিক্ষকরা স্বাবলম্বী হতে মেয়ে শিক্ষার্থীদের উৎসাহিত করতে পারি।তাদেরকে সফল নারীদের গল্প শোনাতে পারি।একজন মেয়ে স্বাবলম্বী হয়ে উঠার পথ দেখাতে পারি,এর সুফল সম্পর্কে তাদেরকে সচেতন করতে পারি।

আমাদের সমাজের মানুষের মন মানসিকতার পরিবর্তন করা এক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। একটা মেয়ে বাবার কাছে যেন বোঝা না হয়, সেজন্য এই সচেতনতা তৈরি করতে হবে।

আমি আশেপাশের অনেক বাবাকে দেখেছি কন্যার বিয়ে নিয়ে অস্থির হতে। কিন্তু দেখিনি তাদেরকে স্বাবলম্বী করে তুলতে অস্থির হতে। পরিবর্তনটা এখানেই আসতে হবে। বিয়ে নিয়ে অস্থির না হয়ে স্বাবলম্বী করতে অস্থির হতে হবে। সেজন্য সচেতনতা তৈরি করতে হবে।

একজন মেয়ে স্বাবলম্বী হওয়ার পর বিয়ে হলে সে ততদিনে হয়ে উঠবে একজন সংসারজ্ঞানসম্পন্ন নারী ও সুস্বাস্থ্যের অধিকারী। ফলে দেশ ও সমাজ পাবে একজন ভালো মা।

ভালো মা বলতে সুস্বাস্থ্যের অধিকারী একজন নারী যিনি সুস্বাস্থ্যের অধিকারী সন্তান জন্ম দিবেন যা সমাজের জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ।

এজন্যই আমাদেরকে কাজ করতে হবে সচেতনতা তৈরি করতে

দেশ ও সমাজ পাবে একজন ভালো মা।

ভালো মা বলতে সুস্বাস্থ্যের অধিকারী একজন নারী যিনি সুস্বাস্থ্যের অধিকারী সন্তান জন্ম দিবেন যা সমাজের জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ।

এজন্যই আমাদেরকে কাজ করতে হবে সচেতনতা তৈরি করতে

Calendar

May 2022
S M T W T F S
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
293031