মোকাব্বির খানকে কারণ দর্শাও নোটিশ দেয়া হয়েছে

প্রকাশিত: ১০:০৪ পূর্বাহ্ণ, এপ্রিল ২৮, ২০১৯

মোকাব্বির খানকে কারণ দর্শাও নোটিশ দেয়া হয়েছে

মোকাব্বির খানকে দলের সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নেওয়ার ২৫ দিন পর গণফোরাম থেকে কারণ দর্শাও নোটিশ দেয়া হয়েছে ।

দলের শৃঙ্খলা পরিপন্থি দুটি অভিযোগের বিষয়ে ১০ দিনের মধ্যে জবাব দিতে বলা হয়েছে গণফোরামের এই প্রেসিডিয়াম সদস্যকে।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী হিসেবে একাদশ সংসদ নির্বাচনে সিলেট-২ আসন থেকে নির্বাচিত মোকাব্বিরই গণফোরামের দলীয় প্রতীক উদীয়মান সূর্য নিয়ে নির্বাচিত প্রথম এবং একমাত্র সংসদ সদস্য।

তাকে কারণদর্শাও নোটিস পাঠানোর এই সিদ্ধান্ত হয়েছিল আট দিন আগে। এর মধ্যে গত শুক্রবার দলের বিশেষ কাউন্সিলের মঞ্চে কামাল হোসেনের পাশে মোকাব্বির খানের উপস্থিতি নেতাকর্মীদের একটি অংশের মধ্যে ক্ষোভের জন্ম দেয়।

গণফোরামের দপ্তর থেকে জানানো হয়, শনিবার দলের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসিন মণ্টুর স্বাক্ষরে বিশেষ বার্তা বাহক ও ডাকযোগে ওই কারণ দর্শাও নোটিস মোকাব্বির খানকে পাঠানো হয়।

বিএনপির সঙ্গে জোট বেঁধে নির্বাচনে অংশ নেওয়া গণফোরাম একাদশ সংসদে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিলেও সুলতার মনসুরের পথ অনুসরণ করে গত ২ এপ্রিল স্পিকার শিরিন শারমিন চৌধুরীর কাছ থেকে শপথ নেন মোকাব্বির খান।

দলের সিদ্ধান্ত না মানায় সুলতার মনসুরকে গণফোরাম থেকে বহিষ্কার করা হয়। তবে মোকাব্বির খান প্রেসিডিয়াম সদস্য হওয়ায় গত ২০ এপ্রিল সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠকে তাকে কারণ দর্শাও নোটিস দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়।

সপ্তাহ পার করে পাঠানো ওই চিঠিতে বলা হয়, সাংসদ হিসেবে শপথ নিয়ে মোকাব্বির খান ‘সম্পূর্ণ অনৈতিক, পার্টির গঠনতন্ত্রবিরোধী এবং পার্টির সিদ্ধান্তের পরিপন্থি’ কাজ করেছেন।

এছাড়া দলের সাধারণ সম্পাদকের অনুমতি ছাড়া পার্টির প্যাড ব্যবহার করে নিজে স্বাক্ষর দিয়ে গত ১ এপ্রিল স্পিকারকে চিঠি দিয়ে শপথ নেওয়ার সিদ্ধান্ত জানিয়েছিলেন মোকাব্বির খান ।
এ দুটি অভিযোগে কেন তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে না- তা ১০ দিনের মধ্যে জানাতে বলা হয়েছে ।