মৌলভীবাজারে লকডাউন ঘোষণার সাথে সাথে টিসিবির পণ্য ক্রয়ের হিড়িক!

প্রকাশিত: ৩:৪৭ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৩, ২০২০

মৌলভীবাজারে লকডাউন ঘোষণার সাথে সাথে টিসিবির পণ্য ক্রয়ের হিড়িক!

মোঃ আব্দুল কাইয়ুম,মৌলভীবাজার: প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে মৌলভীবাজার জেলা অবরুদ্ধ (লকডাউন) ঘোষণার পর ট্রেডিং কর্পোরেশন (টিসিবি) এর নায্য মূল্যে পণ্য ক্রয়ের হিড়িক পরেছে মৌলভীবাজারে ।

সোমবার (১৩ এপ্রিল) দুপুর ১টার দিকে মৌলভীবাজার শহরের মডেল থানার সামনে গিয়ে দেখা যায়, ডিলার আব্দুল খালিক এন্টারপ্রাইজের পণ্যবাহী ট্রাকের সামনে ও পিছনে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখেৃ দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে নারী-পুরুষসহ ক্রেতারা নায্য মূল্যে পণ্য ক্রয় করছেন। এসময় অনেকে দীর্ঘক্ষণ লাইনে দাঁড়িয়েও টিসিবির নায্য মূল্যের পণ্য ক্রয় করেন।

শুধু টিসিবি নয় , লকডাউনের কারনে অবরুদ্ধ হওয়ার আশঙ্কায় শহরের বিভিন্ন মুদি দোকানেও নিত্যপণ্যে ক্রয় করতে ক্রেতাদের ভির বাড়তে দেখা গেছে। তবে টিসিবির পণ্য ক্রয়ে ক্রেতাদের সংখ্যা অন্যান্য দিনের তুলনায় আজ অনেক বেশি বলে জানান ডিলার সংশ্লিষ্টরা।

নায্য মূল্যে টিসিবির পণ্য ক্রয় করতে আসা ফারুক মিয়া জানান, আমি নিম্ন আয়ের মানুষ ,সবকিছু বন্ধ থাকায় আয় রোজগারের পথও বন্ধ। তিনি বলেন, বাজারে দ্রব্য মূল্যে অনেক বেশি তাই অনেকটা বাধ্য হয়ে দীর্ঘক্ষণ লাইনে দাঁড়িয়ে আছি পণ্য ক্রয়ের আশায়।

এদিকে টিসিবি সূত্রে জানা যায়, নায্য মূল্যে টিসিবির পণ্য প্রতি কেজি ছুলা বিক্রি হচ্ছে ৬০টাক,চিনি ৫০টাকা, সোয়াবিন তৈল প্রতি লিটার ৮০ টাকা ও মশুর ডাল প্রতি কেজি ৫০টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

উল্লেখ্য: মৌলভীবাজার জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ও জেলা প্রশাসক নাজিয়া শিরিন জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে করোনাভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির বৈঠক শেষে সোমবার (১৩ এপ্রিল) দুপুর ১২টার দিকে মৌলভীবাজার জেলাকে অবরুদ্ধ (লকডাউন) ঘোষণা করেন। তবে জরুরি পরিষেবা, চিকিৎসাসেবা, কৃষিপণ্য, খাদ্যদ্রব্য সরবরাহ ও সংগ্রহ এর আওতাবহির্ভূত থাকবে। জনস্বার্থে জারিকৃত এ আদেশ আজ সোমবার (১৩ এপ্রিল) বিকাল ৫টা থেকে কার্যকর হবে এবং আদেশ অমান্যকারীর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান জেলা প্রশাসক।

ছড়িয়ে দিন