মৌলভীবাজার জেলায় দুর্গাপূজা ১০৩৬টি পূজা মণ্ডপ,থাকবে প্রশাসনের কঠোর নিরাপত্তা

প্রকাশিত: ১২:১৫ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১০, ২০২৩

মৌলভীবাজার জেলায় দুর্গাপূজা ১০৩৬টি পূজা মণ্ডপ,থাকবে প্রশাসনের কঠোর নিরাপত্তা
কপিল দেব:

কয়েকদিন পরেই সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা। সনাতন ধর্মাবলম্বীদের কাছে দেবী দুর্গা শক্তি ও সুন্দরের প্রতীক। প্রতিবছর অসুরের বিনাশ করতে মা দেবী দুর্গা এ ধরাধামে আবির্ভূত হন। তাই সনাতন ধর্মাবলম্বীরা মনে করেন, সমাজ থেকে অন্যায়-অবিচার ও গ্লানি দূর করার জন্যই এই পূজার আয়োজন। এই উদ্দেশ্য সামনে রেখে সারা দেশের মতো মৌলভীবাজার জেলায় শুরু হতে যাচ্ছে দুর্গাপূজা। আর এ পূজাকে কেন্দ্র করে প্রতিমা তৈরিতে ব্যস্ত সময় পার করছেন মৃৎশিল্পীরা। শেষ মুহূর্তে চলছে দেবী সাজাতে শিল্পীদের রঙ তুলির কারুকাজ।

এদিকে, জেলা-উপজেলায় পাড়া মহল্লায় সেজে উঠছে উৎসবের মণ্ডপগুলো । মণ্ডপ তৈরির কাজেও এখন চলছে শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি।

জেলায় হিন্দুধর্মাবলম্বীরা দেবী দুর্গাকে বরণ করতে এখন ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন। ঘরে ঘরে চলছে আনন্দ উৎসব ও পূজার প্রস্তুতি। নির্ধারিত সময় অনুযায়ী ১ অক্টোবর শুরু হবে পূজা। দশমীপূজা শেষে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে ২৪ অক্টোবর উৎসবের সমাপ্তি ঘটবে।

মৌলভীবাজার জেলায় সার্বজনীন ও ব্যক্তিগত মিলিয়ে ১ হাজার ১০৩৬ টি মণ্ডপে শারদীয় দূর্গা পূজা অনুষ্ঠিত হবে।
প্রায় এক মাস ধরে মণ্ডপগুলোতে চলছে প্রতিমা তৈরির কাজ। আগামী ২০ অক্টোবর মহাষষ্ঠীর পূর্বেই আনুসঙ্গিক সব কাজ শেষ হবে।

 

মৌলভীবাজার জেলার সবচেয়ে বড় পূজা মণ্ডপগুলো হলো- রাজনগর উপজেলার পাঁচগাও দূর্গা মন্দির।কুলাউড়ার কাদিপুর-শিববাড়ী মন্দির। মৌলভীবাজার সদরের ত্রিনয়নী, মহেশ্বরী, আবাহনী।মহেশ্বরী পুজা উদযাপন পরিষদ এর এবারের সম্ভাব্য কেদারনাথ এর আদলে মন্দির।

এবার মৌলভীবাজার জেলায় ১০৩৬টি মন্ডপে পূজার ব্যয় আনুমানিক প্রায় ২৫ থেকে ২৮ কোটি টাকা ব্যয় হবে বলে জানান বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ মৌলভীবাজার জেলার সাধারণ সম্পাদক মহিম দে মধু।

বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ মৌলভীবাজার জেলার সাধারণ সম্পাদক মহিম দে মধু বলেন, আমরা পূজা উদযাপন পরিষদ থেকে জেলায় সভা ডেকে প্রত্যেক উপজেলার কমিটিকে বলেছি, প্রত্যেক মণ্ডপে তাদের পক্ষ থেকে প্রতি শিফটে ৫জন করে ৩টি শিফটে স্বেচ্ছাসেবক সদস্য থাকবে ১৫ জন। এটা পূজা মণ্ডপের জন্য নিজস্ব পাহারা থাকবে। পাশাপাশি প্রত্যেক মন্দিরে সিসি ক্যামেরা বসানোর জন্য বলেছি।এবারের পূজায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী খুবই তৎপর রয়েছেন। বিভিন্ন উপজেলায় খোঁজখবর রাখা হচ্ছে।

তাছাড়া, বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ মৌলভীবাজার জেলার তথ্য অনুসারে এবছর জেলার ১০৩৬টি পূজা মন্ডপে শুধু মূর্তি গড়া বাবদ ব্যয় হবে আনুমানিক প্রায় ৪ থেকে ৫ কোটি ২০ লক্ষ ৫৫ হাজার টাকা।

এদিকে দুর্গাপূজা উপলক্ষে সরকার থেকে প্রত্যেকটি পূজা মণ্ডপে ৫০০ কেজি করে চাল দেওয়া হবে। এছাড়াও হিন্দু ট্রাষ্ঠ থেকে জেলায় ১২০ থেকে ১৩০টি মন্দিরে ৫০০০ টাকা করে অনুদান দেওয়া হবে।তাছাড়াও কিছু মন্দির সংস্কারের জন্য কিছু অনুদান দেওয়া হবে। এবছর মৌলভীবাজার জেলায় মোট পূজা সার্বজনীন ৮৮৬টি এবং ব্যক্তিগত ১৫০টি পূজা অনুষ্ঠিত হবে।

আগামী ২০ অক্টোবর শুক্রবার মহাষষ্ঠীর মধ্যে দিয়ে শুরু হয়ে ২৪ অক্টোবর মঙ্গলবার মহাদশমীতে শেষ হবে শারদীয় দূর্গাৎসব। এবছর দেবী দুর্গার ঘোটকে আগমন ও দেবীর ঘোটকে গমন।

আগামী ২০ অক্টোবর মহাষষ্ঠীর পূর্বেই আনুসঙ্গিক সব কাজ শেষ হবে।

মৌলভীবাজার জেলা পুলিশ সুপার মোঃ মনজুর রহমান ভোরের চেতনাকে বলেন, আসন্ন শারদীয় দূর্গা পূজা উপলক্ষে আমাদের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা জোরদার করা হবে। শারদীয় দুর্গাপূজা শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন করার লক্ষ্যে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সজাগ দৃষ্টি রাখছে। তাদের পক্ষ থেকে তিন স্তরের নিরাপত্তার ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি সব কটি পূজামণ্ডপ গোয়েন্দা নজরদারিতে থাকবে বলেও তিনি জানিয়েছেন। অন্য বছরের চেয়ে এবার জোরালো প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।যেকোন অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি মোকাবেলায় জেলা পুলিশের যে সক্ষমতা আছে, সেটা সর্বোচ্চ ব্যবহার আমরা করবো। জেলা ও উপজেলার পূজা কমিটির সাথে আমরা সভা করেছি একাধিকবার। আমরা জেলার পূজা মণ্ডপ গুলোতে সিকিউরিটি সরঞ্জাম দিয়েছি, মণ্ডপে স্বেচ্ছাসেবকদের জন্য হলুদ সিকিউরিটি জ্যাকেট দেওয়া হবে সাথে তাদেরকে স্পেশাল প্ল্যাস্টিকের লাঠি দেওয়া হবে । আমারা সবার সাথে মিলেমিশে কাজ করবো। আমাদের পক্ষ থেকে জেলায় পর্যাপ্ত পরিমাণে পুলিশ মোতায়েন থাকবে। মাঠে থাকবে র‌্যাব।তাছাড়া প্রায় সাত হাজার আনসার। তবে এ জন্য তিনি সব স্তরের মানুষের সহযোগিতা কামনা করেন।

লাইভ রেডিও

Calendar

February 2024
S M T W T F S
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
2526272829