মৌলভীবাজার জেলায় দুর্গাপূজায় প্রস্তুত এক হাজারের উপরে পূজা মণ্ডপ,প্রশাসনের কঠোর নিরাপত্তা

প্রকাশিত: ৬:০৭ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২২

মৌলভীবাজার জেলায় দুর্গাপূজায় প্রস্তুত এক হাজারের উপরে পূজা মণ্ডপ,প্রশাসনের কঠোর নিরাপত্তা
কপিল দেব:
আজ মহালয়া। কয়েকদিন পরেই সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা। সনাতন ধর্মাবলম্বীদের কাছে দেবী দুর্গা শক্তি ও সুন্দরের প্রতীক। প্রতিবছর অসুরের বিনাশ করতে মা দেবী দুর্গা এ ধরাধামে আবির্ভূত হয়। তাই সনাতন ধর্মাবলম্বীরা মনে করেন, সমাজ থেকে অন্যায়-অবিচার ও গ্লানি দূর করার জন্যই এই পূজার আয়োজন। এই উদ্দেশ্য সামনে রেখে সারা দেশের মতো মৌলভীবাজার জেলায় শুরু হতে যাচ্ছে দুর্গাপূজা। আর এ পূজাকে কেন্দ্র করে প্রতিমা তৈরিতে ব্যস্ত সময় পার করছেন মৃৎশিল্পীরা। শেষ মুহূর্তে চলছে দেবী সাজাতে শিল্পীদের রঙ তুলির কারুকাজ।
এদিকে, জেলা-উপজেলায় পাড়া মহল্লায় সেজে উঠছে উৎসবের মণ্ডপগুলো । মণ্ডপ তৈরির কাজেও এখন চলছে শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি।
জেলায় হিন্দুধর্মাবলম্বীরা দেবী দুর্গাকে বরণ করতে এখন ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন। ঘরে ঘরে চলছে আনন্দ উৎসব ও পূজার প্রস্তুতি। নির্ধারিত সময় অনুযায়ী ১ অক্টোবর শুরু হবে পূজা। দশমীপূজা শেষে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে ৫ অক্টোবর উৎসবের সমাপ্তি ঘটবে।
মৌলভীবাজার জেলায় সার্বজনীন ও ব্যক্তিগত মিলিয়ে ১ হাজার ৭ টি মণ্ডপে শারদীয় দূর্গা পূজা অনুষ্ঠিত হবে।
গত দুই বছর করোনার কারণে বিধিনিষেধের মধ্য দিয়ে সীমিত পরিসরে উৎসবটি পালন করা হয়। তাই এবারের আয়োজন হচ্ছে বেশ ঘটা করে। প্রায় এক মাস ধরে মণ্ডপগুলোতে চলছে প্রতিমা তৈরির কাজ।
মৌলভীবাজার জেলার সবচেয়ে বড় পূজা মণ্ডপগুলো হলো- রাজনগর উপজেলার পাঁচগাও দূর্গা মন্দির।কুলাউড়ার কাদিপুর-শিববাড়ী মন্দির।
মৌলভীবাজার সদরের ত্রিনয়নী, মহেশ্বরী, আবাহনী।
এবার মৌলভীবাজার জেলায় ১০০৭টি মন্ডপে পূজার ব্যয় আনুমানিক প্রায় ২০ থেকে ২২ কোটি টাকা ব্যয় হবে বলে জানান বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ মৌলভীবাজার জেলার সাধারণ সম্পাদক মহিম দে মধু।
বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ মৌলভীবাজার জেলার সাধারণ সম্পাদক মহিম দে মধু বলেন, আমরা পূজা উদযাপন পরিষদ থেকে জেলায় সভা ডেকে প্রত্যেক উপজেলার কমিটিকে বলেছি, প্রত্যেক মণ্ডপে তাদের পক্ষ থেকে দুইজন করে সেচ্ছাসেবক সদস্য থাকবে। এটা পূজা মণ্ডপের জন্য নিজস্ব পাহারা থাকবে। গতবছরের কুমিল্লার ঘটনার পর, এবারের পূজায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী খুবই তৎপর রয়েছেন। বিভিন্ন উপজেলায় খোঁজখবর রাখা হচ্ছে।
তাছাড়া, বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ মৌলভীবাজার জেলার তথ্য অনুসারে এবছর জেলার ১০০৭টি পূজা মন্ডপে শুধু মূর্তি গড়া বাবদ ব্যয় হবে আনুমানিক প্রায় ৩ কোটি ৫২ লক্ষ ৪৫ হাজার টাকা।
এদিকে দুর্গাপূজা উপলক্ষে সরকার থেকে প্রত্যেকটি পূজা মণ্ডপে ৫০০ কেজি করে চাল দেওয়া হবে। যা, টাকার সমপরিমাণে আনুমানিক প্রায় ১৭ হাজার ৫০০ টাকা।
এবছর মৌলভীবাজার জেলায় মোট পূজা সার্বজনীন ৮৭১টি এবং ব্যক্তিগত ১৩৬টি পূজা অনুষ্ঠিত হবে। আগামী পহেলা অক্টোবর শনিবার মহাষষ্ঠীর মধ্যে দিয়ে শুরু হয়ে ৫ অক্টোবর বুধবার মহাদশমীতে শেষ হবে শারদীয় দূর্গাৎসব। এবছর দেবী দুর্গার গজে আগমন ও দেবীর নৌকায় গমন।
এদিকে, কুলাউড়ার কাদিপুর শিববাড়িতে এবারের দুর্গাপূজায় সিমেন্টের তৈরি এক হাজার হাতের দেবী দুর্গা স্থাপিত হয়ে পূজিত হবেন। বিশালাকার এ মূর্তি এবছর কাদিপুর শিববাড়ি মন্দিরের মূল আকর্ষণ।
আগামী ১ অক্টোবর মহাষষ্ঠীর পূর্বেই আনুসঙ্গিক সব কাজ শেষ হবে। সিমেন্টের তৈরি এই দুর্গা প্রতিমা প্রায় ২৩ ফুট উঁচু।
মৌলভীবাজার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জাকারিয়া বলেন, আসন্ন শারদীয় দূর্গা পূজা উপলক্ষে আমাদের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। শারদীয় দুর্গাপূজা শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন করার লক্ষ্যে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সজাগ দৃষ্টি রাখছে। তাদের পক্ষ থেকে তিন স্তরের নিরাপত্তার ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি সব কটি পূজামণ্ডপ গোয়েন্দা নজরদারিতে থাকবে বলেও তিনি জানিয়েছেন। অন্য বছরের চেয়ে এবার জোরালো প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।যেকোন অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি মোকাবেলায় জেলা পুলিশের যে সক্ষমতা আছে, সেটা সর্বোচ্চ ব্যবহার আমরা করবো। জেলা ও উপজেলার পূজা কমিটির সাথে আমরা সভা করেছি একাধিকবার। আমরা জেলার পূজা মণ্ডপ গুলোতে সিকিউরিটি সরঞ্জাম দিয়েছি, মণ্ডপে দু’জন সেচ্ছাসেবক এর জন্য দুইটা হলুদ সিকিউরিটি জ্যাকেট দিয়েছি সাথে তাদেরকে স্পেশাল প্ল্যাস্টিকের লাঠি দিয়েছি। আমাদের পক্ষ থেকে জেলায় সাড়ে ছয় শত পুলিশ মোতায়েন থাকবে। মাঠে থাকবে র‌্যাব।তাছাড়া প্রায় সাত হাজার আনসার। তবে এ জন্য তিনি সব স্তরের মানুষের সহযোগিতা কামনা করেন।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

Calendar

November 2022
S M T W T F S
 12345
6789101112
13141516171819
20212223242526
27282930