যদিও এটা ফেব্রুয়ারি মাস নয়

প্রকাশিত: ২:২৬ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ১৪, ২০২১

যদিও এটা ফেব্রুয়ারি মাস নয়

মীরা মেহেরুন
যদিও এটা ফেব্রুয়ারি মাস নয়, শোকের মাস। সেই শোকের ক্ষরণজনিত এক গভীর অনুভূতি থেকে দুটি কথা লেখার প্রয়াস খুঁজছিলাম। গত ২১ জুলাই কোরবানি ঈদের দিন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি ছবি ভাইরাল হয়। ভাষা শহীদ আবুল বরকতের সমাধিতে একটি কুকুর ঘুমিয়ে আছে।
৪৭ এর ভারত ভাগের পর দীর্ঘ ২৪ বছর ধরে আমাদের অবরুদ্ধ বাংলা ভাষা মুক্তি পেয়েছে যাদের জীবনের বিনিময়ে সে আন্দোলনের ইতিবৃত্ত আমার আলোচ্য বিষয় নয় এ জন্য যে সে ইতিহাস কারো অজানা নয় । একটি স্বাধীন রাষ্ট্র কতগুলি শর্ত সাপেক্ষে গঠিত হয়। নির্দিষ্ট ভুখন্ড, সুনির্দিষ্ট সংবিধান সহ আরো কিছু বিষয় থাকে তার মধ্যে রাষ্ট্রভাষা একটি অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ শর্ত। যখন এগুলোর কোনো একটির ওপর আঘাত আসে তখন জাতিগত অস্তিত্ব প্রশ্নবিদ্ধ হয়। ৪৭ এর পর পাক শাসকগোষ্ঠী তাদের ক্ষমতাকেন্দ্রিক এবং গোষ্ঠীভিত্তিক রাষ্ট্র, সমাজ, সরকারের গুরুত্বপূর্ণ পদ এবং সমস্ত সুযোগ সুবিধা দখল করতে করতে যখন বাংলা ভাষার ওপর আধিপত্য বাদের কালো থাবা বিস্তার করে তখনই বাঙ্গালী জাতিসত্ত্বা হুমকির সম্মুখীন হয় যা থেকে ভাষাকে রক্ষা করেছেন সালাম, রফিক, জব্বার, বরকত, শফিউর সহ অন্যান্য ভাষা শহীদেরা।
এখনো বাংলার প্রতিটি ধূলিকণায় লেগে আছে বায়ান্নর ভাষা শহীদ আর একাত্তরের ত্রিশ লক্ষ শহীদের রক্তের দাগ । বাতাসে ভাসে নিঃস্ব মানুষের স্বজন হারানোর আহাজারি। কেউ কিন্তু তখন লাভালাভ বিবেচনায় জীবন বাজি রাখেনি। জাতিসত্ত্বার অস্তিত্ব আর মর্যাদা রক্ষার প্রশ্নে আপোষহীন দেশপ্রেমিক মানুষ গুলো নেমে পড়েছিল রাজপথে যার সুফল আজ আমরা ভোগ করছি। রাষ্ট্রীয় পর্যায় থেকে শুরু করে সরকারের বড় বড় চেয়ারগুলোতে আমরা বসে বসে যে ক্ষমতা, স্বাধীনতা আর সুবিধার স্বাদ আস্বাদন করছি তা তাঁদেরই ত্যাগের ফসল।


একুশে ফেব্রুয়ারি এলে আমরা ফুল নিয়ে দলে দলে ছুটি প্রভাতফেরিতে শহীদ মিনারে। একুশ এলে আমাদের ভাষার কথা মনে পড়ে যায়, ভাষা শহীদদের কথা মনে পড়ে যায় হঠাৎ যা ইদানিং পরিণত হয়েছে তোষামোদ কেন্দ্রিক। আমাদের সমস্ত চেতনা কেনাবেচার হাঁট বসে এই মাসকে ঘিরে। চেতনা আবর্তিত হতে থাকে মাসকেন্দ্রিক আর অবহেলিত পড়ে থাকে শহীদের সমাধি। হায়রে দৈন্যতা!
কিছু মৃত্যু হয় কেবল দৈহিক। ভাষা শহীদ, একাত্তরে শহীদদের মৃত্যু কেবল এক মূর্ত প্রক্রিয়া মাত্র। এ দেশের মাটি ও মানুষের চেতনায়, হৃদয়ে, মননে তাঁরা বিমূর্ত ও চিরঞ্জীব।
মানুষের মতো কুকুরও প্রকৃতির সৃষ্টি। মহাশক্তির কোনো সৃষ্টিকে উপেক্ষা করার অধিকার কোনো মানুষের নেই। ভাষা শহীদ আবুল বরকতের সমাধিতে কুকুর ঘুমিয়ে আছে সেটা মূল বিষয় নয়। মূলত বিষয় হলো রাষ্ট্রীয় বা জাতীয় পর্যায়ে আমাদের কি কোনো দায়বদ্ধতা নেই ভাষা শহীদ, মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের কবর সংস্করণ ও সংরক্ষণের মাধ্যমে আমাদের দেশপ্রেম চেতনাকে আরো একটু শানিত করার!
ত্যাগের স্মৃতিকে ধারণ করার ক্ষমতা আমরা হারিয়ে কেবল সুবিধা বাদের কোলাহলে মেতে আছি আমাদের দৈন্যতার এ এক চরম নিদর্শন। লেখাটি লিখতে লিখতে রবীন্দ্রনাথের প্রার্থনার একটি গানের কলি মনে পড়ে গেল–
তোমার কথা হেথা কেহ তো বলে না করে শুধু মিছে কোলাহল….!!

লেখক ; সহ সম্পাদক, বাংলাদেশ অর্থনীতি সমিতি

ছড়িয়ে দিন