যোগসাধনার মাধ্যমে মানবকল্যাণে কাজ করতে চান মঞ্জুরী

প্রকাশিত: ১১:৫৫ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২৯, ২০১৯

যোগসাধনার মাধ্যমে মানবকল্যাণে কাজ করতে চান  মঞ্জুরী

যোগসাধনার মাধ্যমে মানবকল্যাণে কাজ করতে চান সৈয়দা মকবুলা মঞ্জুরী । সংক্ষেপে এস এম মঞ্জুরী নামে পরিচিত । রাজধানীর লালমাটিয়ায় তিনি গড়ে তুলেছেন – পতঞ্জলি যোগআশ্রম । অল্প কয়েকজন শিক্ষার্থী নিয়ে শুরু করলেও এখন এই আশ্রমে গুণগ্রাহীর সংখ্যা বাড়ছে ।
মঞ্জুরী জানান, যোগ সাধনার প্রতি তার আগ্রহ ছোটবেলা থেকেই । বাবা সৈয়দ মোখলেসুর রহমান ছিলেন একজন সরকারি চাকরিজীবী । চাইতেন তার মেয়ে অন্যরকম কিছু একটা করুক । মা মনোয়ারা বেগমও তাকে অনুপ্রাণিত করেছেন । তারা ছিলেন চার ভাই চার বোন । ভাই বোনের মধ্যে তিনি মেজো আর বোনদের সবার বড় । প্রাতিষ্ঠানিক ভাবে তিনি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিএসএস করেছেন । কিন্তু তার ভেতরে ছিল যোগ শিক্ষার দুর্নিবার আকাঙ্ক্ষা । ২০১২ সালে তিনি এই উদ্দেশ্যে ভারতে যান । সেখানে গুরুজী সত্যজিৎ বিশ্বাসের কাছে শিক্ষা লাভ করেন । তারপর দেশে ফিরে গড়ে তোলেন এই আশ্রম ।
মঞ্জুরী মনে করেন, যোগ সাধনা মানুষকে শারীরিক ও মানসিকভাবে ভালো রাখে । অস্থির সময়ে মানুষ এখন সুস্থ থাকতে পারছে না । এ অবস্থায় যে কোন মানুষের জন্য যোগ সাধনায় অনেক উপকার। তার ওপরে যারা আধ্যাত্মিক উন্নতি চান, আত্মার মুক্তি যাদের লক্ষ্য তাদের জন্য যোগসাধনা আরো সুফলদায়ক । কারণ পরমাত্মার সঙ্গে জীবাত্মার সংযোগের নামই যোগ ।
যোগ সাধনার প্রাণ পুরুষ ঋষি পতঞ্জলির নামেই মঞ্জুরী তার আশ্রমের নামকরণ করেছেন ।ব্যক্তি জীবনে তিনি দুই সন্তানের জননী ।সংসার জীবনের পরিপূর্ণ স্বাদ গ্রহণ করেছেন ।বাকি জীবনটা মানুষের কল্যাণে ব্যয় করতে চান ।