রক্তভেজা সাদা কেডসের ছবি

প্রকাশিত: ৩:০৪ অপরাহ্ণ, আগস্ট ৩, ২০১৮

রক্তভেজা সাদা কেডসের ছবি

অদিতি ফাল্গুণী

রক্ত ভেজা সাদা কেডস- বৃষ্টির ভেতর কিশোর-কিশোরীদের ভিজে-পুড়ে সংগ্রাম- দেশের সব বড়দের, সব বুড়োদের দেখিয়ে দেওয়া যে নেতা হবার লড়াই, নানা সুবিধার লড়াই না থাকলে কত বড় কাজ করা যায়!

গত পরশু সন্ধ্যায় সহসা তীব্র সাফোকেশন ; ডাক্তার দেখাতে হবে: পরিবার বিচ্ছিন্ন একাকী যাপনে খাওয়া-দাওয়ার অনিয়মে কিছু স্বাস্থ্য সমস্যা বা হৃদরোগ দেখা দিল? এমাজের্ন্সি রেসপন্সের কর্মীরা সাবধানে থেকেন। গত মাসে আমাদের এক পঞ্চাশোর্দ্ধ সহকর্মী এক দিনের নোটিশে বলা নেই কওয়া নেই প্রয়াত হলেন। এক আফ্রিকীয় যুবককে মৃত পাওয়া গেছে তাঁর হোটেল কক্ষে। আমাদের আর এক সহকর্মী গত ডিসেম্বরে আইসিইউতে ভর্তি হয়েছিলেন। খুবই স্ট্রেসের প্রোগ্রামে আমাদের সবাইকে কাজ করতে হয় এবং যে কারো যে কোন সময় যে কোনকিছু হয়ে যেতে পারে। যাহোক, পরশু দিনটা ছিল আতঙ্কজনক। একদিকে অসুস্থতা আর একদিকে ল্যাপটপ নষ্ট। গতকাল ল্যাপটপ সারানো হলো, তবে ফেসবুকে কেন যেন ঢোকা যাচ্ছিল না। ঢুকলেই একমূহুর্ত পরই লগ-আউট হয়ে যাচ্ছিল। আজ সকালে তেমন এক একমূহুর্তের প্রচেষ্টায় নিউজফীডে দেখলাম রক্তভেজা সাদা কেডসের ছবি। এক ঝাঁক কিশোর-কিশোরী বৃদ্ধাঙ্গুষ্ঠ দিয়ে দেখিয়ে দিল দেশের প্রধান বিরোধীদল, গৃহপালিত বিরোধী দল, সংসদে যাওয়া ও সংসদে না যাওয়া বামদল…এত এত টকশো বা সংবাদপত্রের কলাম যা না পারে, কিশোর-কিশোরীরা সেটা পারে। কারণ ওরা ওদের নিহত বন্ধুদের জন্য সত্যিকারের ভালোবাসা নিয়ে দাঁড়িয়েছে।

কোটা বিরোধী আন্দোলন অবধি সত্যিকারের প্রান্তিক ও অসহায় মৃক্তিযোদ্ধা, আদিবাসী ও প্রতিবন্ধীদের কথা ভেবে পুরোপুরি আন্দোলনের পক্ষে ছিলাম না। তাই বলে সরকারের দমন-পীড়নের পক্ষেও ছিলাম না। তবে, এই সড়ক সন্ত্রাস ও সড়ক হত্যার বিরুদ্ধে কিশোরদের আন্দোলন… এককথায় এই খুন-ধর্ষণের অন্ধকারে ডুবে যাওযা ব-দ্বীপে একটু যেন আশার পিদিমে পিলসুজ হয়ে দেখা দিচ্ছে। পাশাপাশি আছে দুশ্চিন্তাও। আওয়ামি লীগ সরকার নিজেই বোধ করি আর ক্ষমতায় থাকতে চায় না। নয়তো জাসদ বা ভিন্ন দল থেকে দলে আসা এক পিশাচ মন্ত্রী যার সময়ে অসংখ্য লঞ্চ দূর্ঘটনা ঘটেছে- তারই শ্যালকের লাইসেন্স বিহীন বাসের খুন নিয়ে পিশাচের হাসির সমর্থনে পুলিশ আর ছাত্রলীগ উঠিয়ে দিতে হবে বাচ্চাদের উপর? আপনারা ক্ষমতা থেকে যাবেন- মানে যেতেই হবে আর কি- তা’ যান! কিন্ত তারপর? এই বাচ্চারা ত’ আর দেশ চালাতে পারবে না। আপনারা যাবার পর ক্ষমতায় আসবে পুনরায় সাকা-নিজামী-মুজাহিদ বা তাদের প্রেতাত্মারা! এদেশকে চুলো থেকে আগুনে ঠেলে দেবার জন্য আপনাদের অবদান মৃত্যু ভবধি কৃতজ্ঞতার সাথে স্মরণ করবো!

 

লেখকের ফেসবুক থেকে নেয়া