রাজনীতিতে নতুন মেরু করণের আভাস

প্রকাশিত: ৯:৩৮ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ২৯, ২০১৭

রাজনীতিতে নতুন মেরু করণের আভাস

রাজনীতিতে নতুন মেরু করণের আভাস পাওয়া যাচ্ছে । বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে বিএনপি এবার বাম দলগুলোর হরতালে সমর্থন দিয়েছে ।সিপিবি, বাসদ ও গণতান্ত্রিক বাম মোর্চা বৃহস্পতিবারের সকাল ৬টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত সারা দেশে এই হরতালের কর্মূসচি করেছে ।বাম দলগুলোর ডাকা হরতালে বিকল্পধারা বাংলাদেশ, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি, নাগরিক ঐক্যও সমর্থন জানিয়েছে।

এই কর্মসূচিতে বিএনপির সমর্থনের কথা জানিয়ে দলটির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বুধবার এক মানববন্ধন কর্মসূচিতে বলেন, আমরা মনে করি, জনস্বার্থে এই হরতাল অত্যন্ত যুক্তিসঙ্গত। আগামীকাল বাম দলগুলো যে হরতাল ডেকেছে, আমি বিএনপির পক্ষ থেকে সেই হরতালকে পূর্ণ সমর্থন জানাচ্ছি ।

বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি) ইউনিট প্রতি বিদ্যুতের দাম গড়ে ৩৫ পয়সা বা ৫ দশমিক ৩ শতাংশ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত জানিয়েছে, যা কার্যকর হবে আগামী ডিসেম্বর থেকে।

গত ২৩ নভেম্বর বিইআরসির ওই ঘোষণার পরপরই হরতালের কর্মসূচি ঘোষণা করে বাম দলগুলো। বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর ওই সিদ্ধান্তকে তারা গণবিরোধী মনে করেন ।

কিন্তু পরদিন এ বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে আমরা অবশ্যই কর্মসূচি দেব। আমাদের একটা ধারণা আছে হরতাল দেওয়া মানে জনগণের সম্পৃক্ততা, এটা সব সময় সঠিক নয়।জনগণের সম্পৃক্ততা নিয়েই আমরা আমাদের পক্ষে যেটা সম্ভব হবে সেই কর্মসূচি দেব। আমরা জনগণের সঙ্গে আছি।

দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন বর্জনকারী দল বিএনপি ২০১৫ সালের ৫ জানুয়ারি থেকে টানা তিন মাস হরতাল-অবরোধ করে। ওই কর্মসূচিতে বাসে আগুন দেওয়া ও পেট্রল বোমা ছোড়ার ঘটনায় দেড়শতাধিক মানুষের মৃত্যু হয় বলে সরকারের তথ্য।বাংলাদেশে এখন রাজনৈতিক কর্মসূচি হিসেবে হরতালের কার্যকারিতা আদৌ আছে কি না তা নিয়ে সে সময় প্রশ্ন তোলেন ক্ষমতাসীন দলের নেতারা।

ওই তিন মাসের পর বিএনপি আর কখনো নিজেরা হরতালের কর্মসূচি দেয়নি। তবে বিভিন্ন ঘটনায় অন্য দলের হরতালে তারা সমর্থন দিয়েছে।

বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধির কঠোর সমালোচনা করে রিজভী বলেন, এই সরকার গণবিরোধী সরকার, এই সরকার মানববিরোধী সরকার, এই সরকার মানবতাবিরোধী সরকার। যতদিন তারা সিংহাসন আটকে রাখবে, ততদিন জনগণ পিষ্ঠ হবে, দলিত হবে, নিষ্ঠুরভাবে তারা দমন করবে।

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে ‘মিথ্যা মামলায় প্রতি সাপ্তাহে হাজিরা দিতে বাধ্য করে হয়রানির প্রতিবাদে’ জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে স্বাধীনতা ফোরামের উদ্যোগে এই মানববন্ধন হয়।