রিজার্ভ লোপাট, ‘বন্ধুর মাধ্যমে’ টাকা পেয়েছেন শালিকা প্রধান

প্রকাশিত: ১০:৪৭ পূর্বাহ্ণ, এপ্রিল ১, ২০১৬

রিজার্ভ লোপাট, ‘বন্ধুর মাধ্যমে’ টাকা পেয়েছেন শালিকা প্রধান
সিলেট বাংলা নিউজ ডেস্কঃ বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ থেকে চুরি যাওয়া যে ২ কোটি ডলার শ্রীলঙ্কায় পাঠানো হয়েছিল, তা এক ‘বন্ধুর’ মাধ্যমে শালিকা ফাউন্ডেশনের অ্যাকাউন্টে জমা হয়েছিল বলে দাবি করেছেন কথিত সেই বেসরকারি সংস্থার প্রধান হ্যাগোডা গ্যামেজ শালিকা পেরেরা।
বার্তা সংস্থা রয়টার্সের কাছে তিনি দাবি করেছেন, শ্রীলঙ্কায় একটি বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণসহ কয়েকটি প্রকল্পে অর্থায়নের জন্য জাপানের আন্তর্জাতিক সহযোগিতা সংস্থা-জাইকার কাছ থেকে ওই অর্থ তাকে এনে দেয়ার কথা বলেছিলেন এক বন্ধু। বাংলাদেশ ব্যাংকের চুরি যাওয়া টাকা থেকে ওই অর্থ আনা হয়েছিল কি না- সে বিষয়ে তার কোনো ধারণা নেই।
হ্যাকিংয়ের মাধ্যমে ইতিহাসের অন্যতম বড় এই রিজার্ভ চুরির ঘটনাটি গত ৪ ফেব্রুয়ারি ঘটলেও বিষয়টি আলোচনায় আসে ফিলিপাইনে ওই টাকার একটি অংশ নিয়ে তদন্ত শুরু হওয়ার পর।
যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক অফ নিউ ইয়র্কে গচ্ছিত বাংলাদেশের রিজার্ভের ১০০ কোটি টাকা চুরির চেষ্টায় ৩৫টি ভুয়া অনুরোধ পাঠায় হ্যাকাররা। এর মধ্যে ৩০টি আটকে গেলেও ১টিতে ওই ২ কোটি ডলার চলে যায় শ্রীলঙ্কার প্যান এশিয়া ব্যাংকে, পেরেরার শালিকা ফাউন্ডেশনের অ্যাকাউন্টে।
যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভ থেকে ওই অর্থ শ্রীলঙ্কায় পৌঁছায় ডয়চে ব্যাংকের হাত ঘুরে। তাদেরই সন্দেহের কারণে শেষ পর্যন্ত শালিকার অ্যাকাউন্টের ওই অর্থ আটকে যায়।
অর্থ স্থানান্তরের অনুরোধে প্রাপকের জায়গায় ‘ফাউন্ডেশন’ বানান ভুল থাকায় ডয়চে ব্যাংক বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কাছে ব্যাখ্যা চেয়েছিল। এর মাধ্যমেই বেরিয়ে আসে, অর্থ স্থানান্তরের অনুরোধটি ছিল ভুয়া।