লালমনিরহাটে কমছে তিস্তা ও ধরলার পানি,রিলিফ নয়,চাই নদী খনন ও স্হায়ী বাঁধ

প্রকাশিত: ২:১৬ অপরাহ্ণ, জুন ২৬, ২০২২

লালমনিরহাটে কমছে তিস্তা ও ধরলার পানি,রিলিফ নয়,চাই নদী খনন ও স্হায়ী বাঁধ

আদিতমারী, লালমনিরহাট প্রতিনিধি: লালমনিরহাটে চলমান বন্যা পরিস্থিতির খানিকটা উন্নতির পথে তিস্তা ধরলায় বিপদসীমার ৪৫ ও  ৫০ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে তবে নিচু এলাকার মানুষজন এখনো পানিবন্দি আছে । লালমনিরহাট তিস্তা ধরলা পারের মানুষজন সরকার কিংবা কোনো ব্যক্তির কাছে রিলিফ, স্লিপ চান না তারা চান নদী খনন সহ নদীর পাড় ভাঙ্গন রোধে স্থায়ী বন্দোবস্ত। অপরদিকে বানভাসি সেই সকল মানুষের পয়নিষ্কাশন সহ বিশুদ্ধ পানির অভাব চরম পর্যায়ে। স্বাস্থ্য বিভাগ ও জনস্বাস্হ্য বিভাগের  পক্ষ থেকে পানি বিশুদ্ধকরণ ট্যাবলেট কিংবা বানভাসি ওই এলাকার উঁচু জায়গায় কোথাও গভীর নলকূপ স্থাপন করতে দেখা যায়নি।

 

 

মহিষখোচা ইউনিয়নের  স্পার বাধের জলিল জানান, যে ত্রাণ  মানুষের কোন কাজে আসে না। রিলিফ নয় নদী খনন ও স্থায়ী নদীতীর রক্ষার বাঁধ চাই।

 

 

অপরদিকে ১০ কেজি করে চাল কিছু সংখ্যক বানভাসি পরিবার পেলেও এখনো অনেক মানুষ তার আওতায় আসেনি।এছাড়াও চাহিদার তুলনায় তা অপ্রতুল।১০ কেজি করে চাল বরাদ্দ হলেও বানভাসি অনেকের অভিযোগ তারা কোন ত্রাণ পাননি।

 

 

নদীর পানি কমতে শুরু করেছে। আপাতত বন্যার পানি বিপদসীমার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। শিশু খাদ্য ও গবাদিপশুর খাদ্য নিয়ে চরম বিপাকে বন্যাকবলিত এলাকার মানুষজন। এসকল ভুক্তভোগী নদী তীরবর্তী এলাকার মানুষজন বলেন,কেউ রিলিফ পাবে কেউ পাবেনা এমন রিলিফ, স্লিপ আমরা চাইনা বরং নদী খনন ও ভাংগনরোধে স্হায়ী সমাধান চাই।

 

 

মহিষখোচা ইউনিয়ন পরিষদের ৮ নং ওয়ার্ড সদস্য মতিয়ার রহমান বলেন, প্রতি বছর বন্যার সময় এলাকার জনগণের ভোগান্তি হয়,এরথেকে কিভাবে পরিত্রান পাওয়া যায় সে ব্যাপারে সরকারের সুদৃষ্টি কামনা করছি।

 

 

আদিতমারী উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা জি,আর,সারওয়ার বলেন,আমরা যথেষ্ট ত্রাণ বিতরণ করেছি,বিশুদ্ধ পানি সরবরাহের  ব্যবস্হা করতে জনস্বাস্থ্যকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

Calendar

August 2022
S M T W T F S
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
28293031