শেষশয্যায় শায়িত হলেন ভাষা সৈনিক বাচ্চু

প্রকাশিত: ১:১৩ পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ৫, ২০১৯

শেষশয্যায় শায়িত হলেন ভাষা সৈনিক  বাচ্চু

শেষশয্যায় শায়িত হলেন ভাষা সৈনিক রওশন আরা বাচ্চু, মৌলভীবাজার জেলার কুলাউড়া শহরের উছলাপাড়ায় নিজ বাড়িতে ।

বুধবার (৪ ডিসেম্বর) সকাল ১১টায় মৌলভীবাজারের কুলাউড়া নবীন চন্দ্র মডেল সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে তাঁর নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

এ সময় ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান জেলা প্রশাসক নাজিয়া শিরিন, পুলিশ সুপার ফারুক আহমদ, সাবেক সংসদ সদস্য আব্দুল মতিন, ভাষা রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ডা. এম এ মুক্তাদির, জনপ্রতিনিধি, স্থানীয় রাজনৈতিক দল ও সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। নামাজে জানাজা শেষে পার্শবর্তী উছলাপাড়া গ্রামের নিজ পৈতৃক বাড়িতে দাফন সম্পন্ন হয়।

রাষ্ট্রভাষা বাংলার দাবিতে ১৪৪ ধারা ভেঙে ভাষাসৈনিক রওশন আরা বাচ্চু আন্দোলনে মিছিল করেন। মঙ্গলবার (৩ ডিসেম্বর) ভোররাতে রাজধানীর অ্যাপোলো হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। মৃত্যুকালে চার মেয়ে ও আত্মীয় স্বজন ও অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

১৯৩২ সালের ১৭ই ডিসেম্বর মৌলভীবাজার জেলার কুলাউড়া থানার উছলাপাড়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন ভাষাসৈনিক রওশন আরা বাচ্চু। তাঁর বাবা এ এম আরেফ আলী, মা মনিরুন্নেসা খাতুন।

পিরোজপুর গার্লস স্কুল থেকে ম্যাট্রিক, বরিশালের ব্রজমোহন কলেজ থেকে ইন্টারমিডিয়েট পাস করে ১৯৫৩ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে দর্শনে অনার্স ও পরে ইতিহাসে এমএ পাস করেন তিনি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দিনগুলোতেই রওশন আরা গণতান্ত্রিক প্রোগ্রেসিভ ফ্রন্টে যোগ দিয়ে জড়িয়ে পড়েন ছাত্র রাজনীতিতে। সলিমুলাহ মুসলিম হল এবং উইম্যান স্টুডেন্টস রেসিডেন্সের সদস্যও নির্বাচিত হয়েছিলেন তিনি।

তিনি ঢাকার আনন্দময়ী স্কুল, লিটন অ্যাঞ্জেলস, আজিমপুর গার্লস স্কুল (খন্ডকালীন), নজরুল একাডেমি, কাকলি হাই স্কুল এবং পরে আলেমা একাডেমিসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষকতার সাথে যুক্ত ছিলেন। সবর্শেষে ২০০০ সালে বিএড কলেজে অধ্যাপক হিসেবে অবসর গ্রহণ করেন।

রওশন আরা বাচ্চুর মেয়ে তানভির ফারহানা ওয়াহিদ বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতির জন্য তার মা ভাষা আন্দোলন করেননি। দেশের ভাষার জন্য করেছেন। দেশের সর্বত্র বাংলা ভাষার প্রচলন হলে তার আত্মার শান্তিপাবে। মা বেশ কদিন ধরেই অসুস্থ ছিলেন। অ্যাপোলো হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। ভোর সাড়ে ৩ টার দিকে তিনি মারা যান।
৫২’র ভাষা আন্দোলনে রওশন আরা বাচ্চু

১৯৫২ সালের বাংলা ভাষা আন্দোলনের সময় রওশন আরা বাচ্চু ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী। ২১ ফেব্রুয়ারিতে যে সকল ছাত্র নেতারা ১৪৪ ধারা ভাঙ্গার পক্ষে ছিলেন তিনি তাদের মধ্যে অন্যতম। তিনি জনমত সমর্থনের জন্যও ব্যাপক চেষ্টা করেন।

তার অনুপ্রেরণায় ইডেন মহিলা কলেজ এবং বাংলাবাজার বালিকা বিদ্যালয় এর ছাত্রীদের সংগঠিত করে আমতলার সমাবেশ স্থলে নিয়ে আসেন। এখান থেকেই ছাত্রনেতারা ১৪৪ ধারা ভঙ্গের ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত নেন।