শ্রীমঙ্গলে দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৫.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস

প্রকাশিত: ৬:০৬ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১, ২০২১

শ্রীমঙ্গলে দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৫.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস

মোঃ আব্দুল কাইয়ুম,মৌলভীবাজার:

এমন হার কাঁপানো ঠান্ডার সাথে পরিচিত নয় মৌলভীবাজার মানুষ। গত কয়েকদিন যাবত তীব্র শৈত্যপ্রবাহ বইছে দেশের শীতলস্থান হিসেবে পরিচিত মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে। কনকন ঠান্ডায় বিপর্যস্থ জনজীবন। ভোর থেকেই তীব্র কুয়াশা দেখা যায়। বেলা বাড়ার সাথে সাথে সূর্যতাপ বৃদ্ধি পেলে কুয়াশা কিছুটা স্নান হয়ে ফিরে আসে আবার কনকনে ঠান্ডা।

 

মাঘের মধ্যে সময়ে জেঁকে বসা তীব্র শীতের আমেজ এখন বাংলার প্রকৃতির সর্বত্রে। বিকেলে প্রকৃতির আলো নিভে গিয়ে সন্ধ্যা নামার সাথে সাথে অনুভূত হয় তীব্র শীত তীব্র দাপট যা অব্যাহত থাকে পরের দিন সকাল পর্যন্ত।

 

সোমবার (১ ফেব্রæয়ারি) দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে জেলার শ্রীমঙ্গলে, ৫ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়া সহকারি মো. ফরমান আলী এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

 

তিনি বলেন, সোমবার দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রার তালিকায় শ্রীমঙ্গলের পরের অবস্থানে আছে তেতুলিয়া,৭ দশমিক ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সারাদেশেই এখন তীব্র শীত বিরাজ করছে।

 

এদিকে শ্রীমঙ্গল আবহাওয়া অফিসের আবহাওয়া সহকারি জাহেদুল ইসলাম মাসুম বলেন, তীব্র শৈত্যপ্রবাহ বইছে শ্রীমঙ্গলে। গতকাল রোববার (৩১ জানুয়ারি) কুড়িগ্রামের রাজারহাটে ছিল শ্রীমঙ্গলের মতো তাপমাত্রা অর্থাৎ ৫ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। কুড়িগ্রাম থেকে হিমালায় অপেক্ষাকৃত কাছে বলে হিমালয়ের উত্তরের হাওয়ার প্রভাবটা এদিকে এসে দেখা দিয়েছে।

 

দিনের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা এখন প্রায় ২০ বা ২৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসের উপর উঠছে না। দুপুর ১টা/২টা পর্যন্ত কুয়াশা কাটছে না। ফলে তীব্র শীত অনুভূত হচ্ছে। সেই সাথে ঠান্ডা বাতাস রয়েছে প্রকৃতিতে। এই কনকনে ঠান্ডার প্রভাব আরো দু-তিনদিন থাকবে বলে জানান আবহাওয়াবিদ জাহেদুল ইসলাম মাসুম।