শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ২৫১ রানে অলআউট হয়েছে বাংলাদেশ

প্রকাশিত: ৭:৫৩ অপরাহ্ণ, মে ১, ২০২১

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ২৫১ রানে অলআউট হয়েছে বাংলাদেশ

ইনিংসের শুরুটা দারুণ ছিল । তামিম ইকবালের আগ্রাসী ব্যাটিংয়ে ভালো করছিল বাংলাদেশ। কিন্তু এই বাঁহাতি ওপেনার ফিরতেই যেন এলোমেলো হয়ে গেল সব। নিয়মিত বিরতিতে সাজঘরে আসা-যাওয়ার মিছিলে ছুটলেন বাকিরা। নড়ব্যাটে ব্যাটিংয়ে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে ফলোঅনের লজ্জায় পড়ে বাংলাদেশ।

আজ শনিবার প্রথম ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে ২৫১ রানে অলআউট হয়েছে বাংলাদেশ। ২৪২ রানে এগিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নামে শ্রীলঙ্কা। দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিং নেমে ১৭ রান তুলতে দুই উইকেট হারিয়েছে স্বাগতিকেরা। এর মধ্যে একটি নিয়েছেন মিরাজ। বাকি উইকেটটি নিয়েছেন তাইজুল। ২৫৯ রানে এগিয়ে থেকে আগামীকাল রোববার চতুর্থ দিন শুরু করবে শ্রীলঙ্কা।

ব্যাট হাতে শুরুটা আশা জাগানিয়া ছিল বাংলাদেশের। ইনিংসের প্রথম ওভারে বাউন্ডারি হাঁকিয়ে রানের খাতা খোলেন তামিম। এরপর ওয়ানডে স্টাইলে খেলে তুলে নেন ক্যারিয়ারের ৩১তম টেস্ট হাফসেঞ্চুরি। মাত্র ৫৭ বল খেলে আট বাউন্ডারিতে সিরিজে টানা তৃতীয় হাফসেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন বাঁহাতি এই ওপেনার।

তামিম ও সাইফের ব্যাটে এত ভালো শুরুর পরও লাঞ্চ বিরতির আগে ছন্দপতন হয় বাংলাদেশের। লাঞ্চ বিরতির আগে জোড়া ধাক্কা খায় সফরকারীরা। প্রথমে ২৫ রানে আউট হন সাইফ হাসান। সাইফের পর উইকেটে এসে টিকতে পারেননি নাজমুল হোসেন শান্তও। রানের খাতা খোলার আগেই বিদায় নিয়েছেন তিনি।

হাফসেঞ্চুরির পর সেঞ্চুরির পথে হাঁটছিলেন তামিম। কিন্তু পারলেন না তিন অঙ্কের ঘরে যেতে। বিরতির পর সাজঘরে ফেরেন তামিম ইকবাল। ৯২-এর ঘরে গিয়েই থামলেন তামিম। এর আগে প্রথম টেস্টেও ৯০ রানে আউট হয়েছিলেন বাঁহাতি এই ওপেনার।

এরপর নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারিয়ে ২৫১ রানে গুটিয়ে যায় বাংলাদেশ। হাফসেঞ্চুরি থেকে এক রান দূরে থেকে আউট হন মুমিনুল। ৪০ রানে সাজঘরে ফেরেন মুশফিক।

পাল্লেকেলে টেস্টে আজ তৃতীয় দিন ব্যাটিংয়ে বেশি সময় নেয়নি শ্রীলঙ্কা। দিনের শুরুতেই টিকে থাকা রমেশ মেন্ডিসকে আউট করে নিজের চতুর্থ শিকার তুলে নেন তাসকিন আহমেদ। ওই উইকেট পতন হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ৪৯৩ রানে ইনিংস ঘোষণা করে লঙ্কানরা। তৃতীয় দিন সকালে মিনিট ১৫ ব্যাটিং করে ইনিংস ছাড়ে স্বাগতিকেরা।

গতকাল শুক্রবার আলোরস্বল্পতার কারণে ২৪.১ ওভার খেলা বাকি থাকতেই শেষ হয় দ্বিতীয় দিন। তাই আজ খেলা মাঠে গড়িয়ে ১৫ মিনিট আগে। দিনের চতুর্থ ওভারেই তাসকিনের বলে আউট হন মেন্ডিস। ডান হাতি পেসারের বল স্কয়ার লেগ হাঁকান মেন্ডিস। সেখানে ছিলেন মুশফিকুর রহিম। ক্যাচ নিতে ভুল করেননি তিনি। ৩৩ রানে ভাঙে মেন্ডিসের প্রতিরোধ।

৩৪.২ ওভার বোলিং করে ১২৭ রানে ৪ উইকেট নিয়েছেন তাসকিন। টেস্টে এটাই ক্যারিয়ারসেরা বোলিং। আগের সেরা ছিল ৩ উইকেট।

গতকাল টেস্টের দ্বিতীয় দিন শেষে শ্রীলঙ্কার সংগ্রহ ১৫৫.৫ ওভারে ছয় উইকেটে ৪৬৯ রান। দিন শেষে ৬৪ রানে অপরাজিত ছিলেন ডিকবেলা। তাঁর সঙ্গে ২২ রানে অপরাজিত ছিলেন রমেশ মেন্ডিস। তার আগে গত বৃহস্পতিবার এক উইকেটে ২৯১ রান নিয়ে টেস্টের প্রথম দিন শেষ করেছে শ্রীলঙ্কা। বাংলাদেশের হয়ে প্রথম দিন একমাত্র উইকেটটি নিয়েছিলেন শরিফুল ইসলাম।