সকলের জন্য শিক্ষার সুযোগ সৃষ্টি করা হয়েছে : শিক্ষামন্ত্রী

প্রকাশিত: ১১:৪৬ অপরাহ্ণ, জুলাই ১, ২০১৮

সকলের জন্য শিক্ষার সুযোগ সৃষ্টি করা হয়েছে : শিক্ষামন্ত্রী

 

আজ থেকে সারা দেশে ২০১৮-২০১৯ শিক্ষাবর্ষের একাদশ শ্রেণির ক্লাস শুরু হয়েছে। এ উপলক্ষে ঢাকা কলেজে কেন্দ্রীয়ভাবে একাদশ শ্রেণির নবীন শিক্ষার্থীদের ’ওরিয়েন্টেশন ও নবীনবরণ উৎসব-২০১৮’ উদ্বোধন করা হয়। শিক্ষামন্ত্রী নূরুল ইসলাম নাহিদ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, শিক্ষাক্ষেত্রে সকলের জন্য সুযোগ সৃষ্টি করা হয়েছে। দরিদ্র পরিবারের শিশুরাও এখন বিদ্যালয়ে যাচ্ছে। বিনামূল্যে পাঠ্যপুস্তক এবং উপবৃত্তি প্রদানের ফলে সকল শিশু বিদ্যালয়ে আসছে। তিনি বলেন, শতকরা ৯৯ শতাংশের বেশি শিশু এখন বিদ্যালয়ে নাম নিবন্ধন করেছে। বিভিন্ন ত্রুটি-বিচ্যুতি সত্ত্বেও শিক্ষাক্ষেত্রে যুগান্তকারী পরিবর্তন এসেছে।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ এখন উন্নয়নশীল দেশের কাতারে উন্নীত হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষিত ২০৪১ সালে উন্নত বাংলাদেশ নির্মানের জন্য নতুন প্রজন্মকে গড়ে তুলতে হবে। প্রযুক্তিজ্ঞান ও দক্ষতা অর্জন করতে হবে। তাদেরকে ভাল মানুষ হয়ে গড়ে উঠতে হবে। সর্বক্ষেত্রে প্রস্তুত করে একজন পরিপূর্ণ ও উপযুক্ত মানুষ হয়ে উঠতে হবে। এক্ষেত্রে শিক্ষকদের দায়িত্ব নিতে হবে। তিনি নবীন শিক্ষার্থীদের ভালভাবে পড়াশুনা করে তাদের সময়কে কাজে লাগানোর আহবান জানান। শিক্ষামন্ত্রী বলেন, কলেজে ভর্তি কার্যক্রমকে পুরোপুরি অনলাইনে করা হয়েছে। ফলে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকেরা হয়রানির হাত থেকে রক্ষা পাচ্ছেন এবং স্বচ্ছতার সাথে ভর্তি কার্যক্রম বাস্তবায়িত হচ্ছে।

তিনি বলেন, ঢাকা কলেজে একটি ১০-তলাবিশিষ্ট নতুন ভবন নির্মাণ করা হবে। হোস্টেল ও নতুন লাইব্রেরি ভবন নির্মাণ করাসহ ২২ কোটি টাকার প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।

ঢাকা কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মো. মোয়াজ্জম হোসেন মোল্লাহ্র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. সোহরাব হোসাইন, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক প্রফেসর মো. মাহাবুবুর রহমান, কলেজের উপাধ্যক্ষ অধ্যাপক নেহাল আহমেদ এবং শিক্ষক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর শামীমা বেগম।

একাদশ-দ্বাদশ শ্রেণির ২০১৯-২০২০ শিক্ষাবর্ষের পাঠ্যপুস্তক বাজারজাতকরণ ও বিতরণ কার্যক্রম উদ্বোধন

পরে শিক্ষামন্ত্রী রাজধানীর মতিঝিলে জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড (এনসিটিবি) মিলনায়তনে একাদশ-দ্বাদশ শ্রেণির ২০১৯-২০২০ শিক্ষাবর্ষের তিনটি পাঠ্যপুস্তক – বাংলা সাহিত্যপাঠ, বাংলা সহপাঠ এবং ইংলিশ ফর টুডে বাজারজাতকরণ ও বিতরণ কার্যক্রম উদ্বোধন করেন। এ তিনটি বই ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষ থেকে স্বল্পমূল্যে বিতরণের জন্য বেসরকারি খাতের প্রকাশকদের মাধ্যমে বাজারজাত করা হচ্ছে। এনসিটিবি’র চেয়ারম্যান প্রফেসর নারায়ণ চন্দ্র সাহার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক প্রফেসর মো. মাহাবুবুর রহমান, বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর এ কে এম ছায়েফ উল্যাহ, বাংলাদেশ মুদ্রণ শিল্প সমিতির সভাপতি তোফয়েল হোসেন খান এবং বাংলাদেশ পুস্তক প্রকাশক ও বিক্রেতা সমিতির সহ-সভাপতি শ্যামল পাল।

এসময় শিক্ষামন্ত্রী বলেন, বছরের প্রথমদিনে বিনামূল্যে ১ম থেকে ৯ম-১০ম শ্রেণির সকল শিক্ষার্থীর হাতে বই তুলে দেয়া হচ্ছে। এটি সারা পৃথিবীতে একটি অতুলনীয় ও অবিশ্বাস্য ঘটনা। আজ থেকে ২০১৯-২০২০ শিক্ষাবর্ষের একাদশ শ্রেণির তিনটি বই সস্তা দামে শিক্ষার্থীদের হাতে পৌছে দেয়া হচ্ছে।