সমমনা গার্মেন্টস শ্রমিক সংগঠনের ৭ দফা দাবি

প্রকাশিত: ৯:১৭ পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ২৬, ২০১৫

সমমনা গার্মেন্টস শ্রমিক সংগঠনের ৭ দফা দাবি

এসবিএন ডেস্ক:
গার্মেন্টস শ্রমিকদের মোট মজুরীর ৫০ শতাংশ মহার্ঘ ভাতা, রেশনিং ব্যবস্থার মাধ্যমে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য দেয়া, কারখানার পাশে ডরমেটরি তৈরিসহ ৭ দফা দাবি জানিয়েছে সমমনা গার্মেন্টস শ্রমিক সংগঠন সমূহ।

শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনের পক্ষ থেকে এসব দাবি জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন বাংলাদেশ পোশাক শিল্প শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি মো: তৌহিদুর রহমান।

তিনি বলেন, বর্তমান সরকার ২০০৯ সালের নির্বাচনী ইশতেহারে শ্রমিকদের জন্য রেশনিং ব্যবস্থা চালুর ঘোষণা দিয়েছিলেন। কিন্তু আজ পর্যন্ত তা বাস্তবায়ন হয়নি।

পাশাপাশি প্রতিটি কারখানার আশে পাশে ডরমেটরি তৈরি করে শ্রমিকদের আবাসিক সমস্যা সামধানে মালিদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

লিখিত বক্তব্যে তিনি ৭ দফা দাবি তুলে ধরেন-

১.গার্মেন্টস শ্রমিকদের জীবন যাত্রার ব্যয় নির্বাহের জন্য ২০১৬ সাল থেকে মোট মজুরীর শতকরা ৫০ ভাগ মহার্ঘ ভাতা প্রদান করতে হবে।

২. শ্রম আইন ও বিধিমালায় সন্নিবেশিত শ্রমিক স্বার্থ এবং ট্রেড ইউনিয়ন সংগঠন বিরোধী অংশ সমূহ সংশোধনের উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে।

৩. শ্রম দপ্তর ও কলকারাখানা পরিদর্শন পরিদপ্তর থেকে অসৎ ও ঘুষখোর কর্মকর্তাদের অপসারণ করতে হবে।

৪. অবিলম্বে সকল গার্মেন্টস কারাখানায় স্বাস্থ্যহানীকর, অস্বাভাবিক টার্গেট প্রডাকশনের চাপ বন্ধ করতে হবে।

৫. গার্মেন্টস শ্রমিকদের জন্য রেশনিং ব্যবস্থা চালু করতে হবে।

৬.আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার কনভেনশন নং-১ বিরোধী জেনারেল ডিউটির পর দৈনিক ঘন্টার অতিরিক্ত ওভারটাইম করা যাবে না মর্মে শ্রম আইন ধারা-১০০ ও ১০২ প্রয়োগ থেকে অব্যাহতি প্রদানের জন্য শ্রম মন্ত্রনালয়ের প্রজ্ঞাপন বাতিল করতে হবে।

৭. কারাখানার আশে পাশে শ্রমিকদের থাকার বাসস্থানের ব্যবস্থা করতে হবে।

এসব দাবি মানা না হলে আন্দোলনের কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে বলে শ্রমিক নেতারা হুশিয়ারি দেন।

সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ সংযুক্ত গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশনের সম্পাদক মঈনউদ্দিন মন্ডল, গার্মেন্টস শ্রমিক জোটের সভাপতি রোকেয়া সুলতানা আঞ্জু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।