সমাজ থেকে সাম্প্রদায়িকতা নির্মূল করতে হবে: টিটন

প্রকাশিত: ১১:৪৩ অপরাহ্ণ, মার্চ ১১, ২০২০

সমাজ থেকে সাম্প্রদায়িকতা নির্মূল করতে হবে: টিটন

মোহাম্মদ অলিদ সিদ্দিকী তালুকদার:

বিশ্বমানব সংস্কৃতি ও সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠন ঐক্যজোটের সভাপতি,বিশিষ্ট কবি,গবেষক, পরিবেশ ও সামাজিক বিশ্লেষক, জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড (এনসিটিবি) টেকস্ট বইসহ প্রায় শত গ্রন্থের লেখক বাংলাদেশের শিক্ষাঙ্গনের এক নজির স্থাপন দৃষ্টান্তকারি একমাত্র কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঠ্যপুস্তক” বোর্ড এনসিটিবির অনুমোদিত ” উচ্চাঙ্গ সংগীত ও লঘুসংগীত (১ম ও ২ য়,পত্র) সংগীত কলেজে একমাত্র পাঠ্যপুস্তক এর লেখক প্রাকৃতজ শামিমরুমি টিটন বলেছেন, সমাজ থেকে সাম্প্রদায়িকতা নির্মূল করতে হবে। বাঙালির জাতীয়তার ইতিহাস চিরায়ত অসাম্প্রদায়িকতার এক অবিনাশী গল্প। হাজার বছরের অসাম্প্রদায়িক বিষয়টি নিয়ে বাংলাদেশে আর কোনো অপরাজনীতি করা চলবে না। আমাদের জাতীয় জীবনে যখনই ঘনিয়ে এসেছে অমানিশার কালো ছায়া, বিপন্ন করতে চেয়েছে আমাদের সম্প্রীতির সাজানো বাগান, আমরা জেগে উঠেছি। তাদের প্রতিহত করেছি, সৃষ্টি করেছি নতুন ইতিহাসের।

আজ ১১ মার্চ বুধবার বিকেলে দেয়া এক প্রতিক্রিয়ায় তিনি এসব কথা বলেন।

প্রাকৃতজ শামিমরুমি টিটন প্রকৃতির পরিশীলিত কণ্ঠস্বর, অসাম্প্রদায়িক প্রগতিশীল চিন্তায় স্নাত মুক্তচিন্তার মানুষ । বাঙালি জাতি হিসেবে আমাদের যে অমিত অনাদি গৌরব- সেই ইতিহাস- ঐতিহ্যের প্রতি টিটনের রয়েছে গভীর শ্রদ্ধাশীল। একুশ’র,ভাষা আন্দোলন এবং একাত্তরের মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ধারণ করেছেন নিজ কর্মে ও সৃজনে। দেশজীবনই হয়ে উঠে তাঁর আত্মজীবন এবং দেশপ্রেমই হয়ে উঠেছে বিশ্বজনীন বিশ্বপ্রেম।

প্রাকৃতজ শামিমরুমি টিটন বলেন, এ অঞ্চলের পারস্পরিক সৌহার্দ্য বিনষ্ট করার অপচেষ্টা চলেছে বারেবারে। এখনো আমরা সাম্প্রদায়িক রাজনৈতিক শক্তি নির্মূল করতে পারিনি। তাই যে কোনো সময় আঘাত আসতে পারে, আমরা আগে থেকে প্রস্তুত থাকতে চাই। আমরা জানি, এই দেশের অধিকাংশ জনগোষ্ঠী সাম্প্রদায়িকতাবিরোধী ও সাম্যের পক্ষে। আমাদের এখন ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। যেভাবে জেগেছিল প্রাণ-প্রেম -সৌন্দর্যের কী মহিমাময় ধ্বনি – বোধ-স্বর -সুর ‘ বাল্মিকী রামায়ণ ‘ মহাভারত’র কৃষ্ণ দ্বৈপায়ন ব্যাস, আর মহাকবি হোমারের ইলিয়ড- ওডিসি’তে বিধৃত ভূ- জীবন জলে শাশ্বত চিরকাল- চিরদিন এক মামব – পৃথিবীর ছবি। হ্যাঁ,এভাবেই নীরব পৃথিবীর ঘুম ভাঙে দিবারাত- নিশিদিন।

তিনি শামীমরুমি টিটন আরও বলেন,১৯৫২, ’৫৪, ’৬৯ আর ’৭১-এ একতাবদ্ধ হয়ে আমরা অসাম্প্রদায়িক নরমাংসভুক হিংস্র শকুনের দলকে রুখে দিয়েছি। আমাদের হাজার বছরের ইতিহাস মিলন আর সম্প্রীতির ইতিহাস। এখানে ঘৃণ্য সাম্প্রদায়িকতার স্থান নেই। সমাজ থেকে সাম্প্রদায়িকতা নির্মূল করতে হবে। ধর্মান্ধ ও সাম্প্রদায়িক শক্তিকে রুখে দিতে সমাজের সর্বস্তরের ঐক্য প্রয়োজন। ধর্মের দোহাই দিয়ে যারা আমাদের মুক্তিযুদ্ধের আদর্শকে জলাঞ্জলি দিতে চায়, তাদের বিরুদ্ধে দাঁড়াতে হবে। ধর্ম যার যার বাংলাদেশ আমার- এই বোধ নতুন করে ছড়িয়ে দিতে হবে সবার মাঝে। সম্প্রীতি বাংলাদেশ সে প্লাটফর্মের কাজ করবে।

শামীমরুমি টিটন দৃঢ়ভাবে প্রতিজ্ঞ হয়ে বলেন-বিনম্র শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা-রেডটাইমস ডটকম বিডি এর সবাই আপন করে নিয়েছে । এর চেয়ে বড়ো আনন্দের সংবাদ আর কী হতে পারে। আদিতে কথা তো এমনই ছিল_রেডটাইমস ডটকম বিডি সর্বক্ষণ সবার জন্য সমানতালে কাজ করবে । কারক-ক্রিয়ায় ঘটেছে ও তাই। গণমাধ্যম বস্তুনিষ্ঠ আচ্ছাদনে বেঁধেছে বন্ধনে হিমালয়সমস্বচ্ছ সলিল নির্মল অচ্ছোদসরোবর । এখন এক কথায় প্রকাশ ” অসাম্প্রদায়িক মানবিক চেতনা সমুজ্জল ” করে ক্ষমতায়নে উন্নয়ন এবং সহিংস বৈষম্য আচরণ থেকে উত্তরণে সচেতন ভূমিকা পালন করাই আমাদের মানবিক চেতনাবোধ। একই সঙ্গে পিছিয়েপড়া জনগোষ্ঠীকে সঙ্গে নিয়ে “চেতনায়নে উন্নয়ন” অর্থে মামবসম্পদ উন্নয়নে নানা সামাজিক সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডে আলোকে-বর্তিকা স্বরূপ বলিষ্ঠ ভূমিকা রাখছে । এ প্রত্যয়ে পারস্পরিক সহযোগিতার সমন্বয় ঘটেছে দেশ-বিদেশের আন্তর্জাতিক ভাবে কাজ করে যাচ্ছে বিশ্ব মানব সংস্কৃতি সংগঠনটি। দেশের সার্বজনীন সেক্যুলার গণমাধ্যমের সহযোগিতা ও আর্শীবাদ পেলে এবং যদি ভালোবাসায় আরো আশ্রয়প্রশ্রয় পাই,তো শর্তহীন ভাবেই কর্মত্যাগে চিরদিন সক্রিয়ই থাকতে চাই ।

সাম্প্রতিক সাম্প্রদায়িক বিষয়ে কবি প্রাকৃতজ শামিমরুমি টিটন কবিতার ছন্দে ছন্দে মিলিয়ে বলেন-” হে-প্রিয় বাংলাদেশ- আমি দেখেছি তোমার বুকে চির স্বর্গ আখর –
তুমি এঁকেছ আমার বুকে প্রাণ সুধাকর -!
তুমি আকাশ -পাতালে প্রসারিত মন প্রেমেরই হৃদয়_দেহ – মন – প্রাণে দ্যূতিত – চেতনা- প্রেম – অনঙ্গ – অদয়,।।”

শামীমরুমি টিটন বলেন- ১৯৭১ সালের ৭ মার্চ আমাদের জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান তিনি এক ঐতিহাসিক ভাষণে অসহযোগ আন্দোলনের ডাক দিয়ে ঘোষণা করেন” এবারের সংগ্রাম -আমাদের মুক্তির সংগ্রাম” এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম। ” ঐ সংগ্রামের জন্য বঙ্গবন্ধু তিনি জনগণকে” যা,কিছু আছে তাই নিয়ে” প্রস্তুত থাকতে বলেন। তিনি ২৬ শে মার্চ অগ্নিঝড়া স্বাধীনতার ঘোষণা দেন ও পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর হাতে তখন গ্রেফতার হন।এতে নির্বাচিত গণপ্রতিনিধিরা ১০ এপ্রিল বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে রাষ্ট্রপ্রতি নির্বাচিত করে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার গঠন করেন। তাঁরা স্বাধীনতার ঘোষণাপত্র জারি করেন এবং বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে মুক্তিযুদ্ধ পরিচালনা করেন। ১৬ ডিসেম্বর অর্জন হলে শেখ মুজিব পাকিস্তানের কারাগার থেকে মুক্ত হয়ে ১০ জানুয়ারি বীরের বেশে স্বদেশ প্রত্যাবর্তন করেন। বাঙালির অবিসংবাদিত নেতা হিসেবে শেখ মুজিবুর রহমান জীবদ্দশায় কিংবদন্তি হয়ে ওঠেন।সেই হিসেবে এবার আগামী ১৭ মার্চ অগ্নিঝড়া মাস হাজারো বাঙালির জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শত তম বর্ষে পদার্পণ উপলক্ষে আমি গভীর শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করছি। সেই সাথে তাঁহার সুযোগ্য কন্যা মহান দেশপ্রেমিকের সোনালী স্বপ্নের ইতিহাস মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দীর্ঘায়ু কামনা করছি।

ছড়িয়ে দিন

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

Calendar

November 2021
S M T W T F S
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
282930