সরকারি খাল দখল করে আওয়ামীলীগ নেতার স্থাপনা নির্মাণ

প্রকাশিত: ১১:৩৬ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১০, ২০২০

সরকারি খাল দখল করে আওয়ামীলীগ নেতার স্থাপনা নির্মাণ


রৌমারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি
দেশের সবার নজর যখন করোনার দিকে ঠিক এ সময়ে কুড়িগ্রামের রৌমারীতে অবৈধভাবে সরকারি একটি খাল দখলে নিচ্ছেন আওয়ামীলীগের এক নেতা। উপজেলার যাদুরচর ইউনিয়ন ভূমি অফিস সংলগ্ন কর্তিমারী বাজার এলাকার উত্তর পাশে সরকারি একটি খাল অবৈধভাবে দখল, স্থাপনা নির্মাণ ও মাটি ভরাটের কাজ করছেন আওয়ামীলীগের ওই এক নেতা। এ ঘটনায় এলাকাবাসীর পাশাপাশি ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন কুড়িগ্রাম-৪ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য মো. রুহুল আমিনও। অভিযোগ রয়েছে, রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে ও ভূমি অফিসের অসাধু কর্মকর্তাদের প্রত্যক্ষ মদদে এ খালটি দখল ও ভরাট করছেন ওই নেতা। অবৈধভাবে দখলের এ ঘটনাটি স্থানীয় প্রশাসনকে একাধিকবার জানানোর পরও প্রশাসন চুপ রয়েছে। খালটি ভরাট হলে বাজারের পানি ও পয়োনিষ্কাশন ব্যবস্থায় সমস্যা দেখা দিবে।
স্থানীয় প্রশাসন এতে প্রত্যক্ষ মদদ দিচ্ছেন বলে অভিযোগ করেন কুড়িগ্রাম-৪ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য মো. রুহুল আমিন। তিনি অভিযোগ করে বলেন, ‘আওয়ামীলীগের ব্যানারে থেকে ও সরকারের গুরুত্বপূর্ণ কয়েক ব্যক্তির নাম ভাঙিয়ে সুরুজ্জামাল কর্তিমারী বাজারের পানি ও পয়োনিষ্কাশনের একমাত্র সরকারি খালটি অবৈধভাবে দখল, স্থাপনা নির্মাণ ও অবৈধ ড্রেজার দিয়ে মাটি ভরাটের কাজ করছেন। বিষয়টি যাদুরচর ইউনিয়ন ভূমি অফিসের সহকারি ভূমি কর্মকর্তা, এসিল্যান্ড, ইউএনও কে জানালেও তারা কোনো ব্যবস্থা নিচ্ছেন না।’
ওই নেতার নাম সুরুজ্জামাল সরকার। তিনি কুড়িগ্রামের রৌমারী উপজেলা আওয়ামীলীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক। সরুজ্জামাল সরকারের দাবি, তিনি মামলা করে ওই জমি পেয়েছেন। কোন সূত্রে মামলা করেছেন এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, পৈত্রিক সূত্রে মামলা করে ৩৪শতক জমি পেয়েছেন এবং ওই খালে তিনি টিনের চালা ও মাটি ভরাটের কাজ করছেন।
তবে নাম প্রকাশ্যে অনিচ্ছুক ওই এলাকার কয়েকজন প্রবীণ ব্যক্তি জানান, যাদুরচর মৌজার ১নং খতিয়ানের ৩৬৩২নং দাগে ওই সুরুজ্জামাল বা তার পূর্বপুরুষের কোনো জমি ছিল না।
যাদুরচর ইউনিয়ন সহকারি ভূমি কর্মকর্তা গোলাম মর্তুজা বলেন, ‘মৌজা যাদুরচর, আরএস খতিয়ান নং ১ এর ৩৬৩২দাগে এ খালটি সরকারি। এটা কারো নামে বন্দোবস্ত বা লিজ দেওয়া হয় নাই। অবৈধভাবে দখলের বিষয়টি এসি ল্যান্ড স্যার ও ইউএনও স্যারকে মৌখিকভাবে জানানো হয়েছে বলে জানান ওই ভূমি কর্মকর্তা।’
সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, পূর্ব-পশ্চিমে ওই খালটি প্রবাহিত। খালের দক্ষিণ পাশে কর্তিমারী হাট-বাজার। উত্তরে ব্যক্তি মালিকানা জায়গা। বাজারের পানি ও পয়োনিষ্কাশনের একমাত্র ড্রেনটি এ খালে এসে পড়েছে। পানি, ময়লা আবর্জনায় ভরা এ খালের মধ্যে সারি সারি বাঁশের খুটিতে টিনের চালা নির্মাণ করা হচ্ছে। ড্রেজার মেশিন দিয়ে পূর্ব পাশ থেকে খালটিতে মাটি ভরাট ও অবকাঠামো নির্মাণের কাজ করছেন কয়েকজন শ্রমিক।
এ ঘটনায় এলাকার মানুষের মধ্যে চাপা ক্ষোভ বিরাজ করছে। পরিবেশ বিপর্জয় থেকে রক্ষায় খালটিকে চালু রাখার দাবি এলাকাবাসীর।

ছড়িয়ে দিন

Calendar

November 2021
S M T W T F S
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
282930