স্কুলের পাঠক্রমে জ্যোতির্বিদ্যার মৌলিক বিষয়গুলো যুক্ত করার দাবি

প্রকাশিত: ৮:৩৩ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ১, ২০১৮

স্কুলের পাঠক্রমে জ্যোতির্বিদ্যার মৌলিক বিষয়গুলো যুক্ত করার দাবি

 

আকাশের সঙ্গে যুক্ততা শেষ বিচারে যুক্তিবোধ সম্পন্ন বিজ্ঞানমনষ্ক প্রজন্ম তৈরি করে। আর তাই স্কুলের পাঠ্যক্রমে জ্যোতিবিজ্ঞানের মৌলিক বিষয়গুলোকে যুক্ত করা প্রয়োজন। আধুনিক বিজ্ঞানের জনক গ্যালিলিও গ্যারিলেই-এর চিন্তার জগৎ নিয়ে আযোজিত এক আলোচনা অনুষ্ঠানে বক্তা ও আলোচকগণ এ দাবি জানিয়েছেন। ৩০ জুন ঢাকার বাতিঘর পুস্তক বিপনি কেন্দ্রে বাংলাদেশ বিজ্ঞান জনপ্রিয়করণ সমিতি “নক্ষত্রের বার্তাবহ: গ্যালিলিও গ্যালেলেই- গ্যালিলিও গ্যালেলেই এর চিন্তার জগতে পদচারণা” শীর্ষক এই মাসিক বিজ্ঞানাড্ডার আয়োজন করে।
আকাশে সন্ধ্যাতারা নামে পরিচিত শুক্রগ্রহের চলাচল থেকে “পৃথিবী কেন্দ্রিক” ধারণা থেকে বের হয়ে আসা, গির্জার ঝাড়বাতির দোলন থেকে সরল দোলক, আর পিসার হেলানো মিনার থেকে ভারি-হালকা বস্তু ফেলে দিয়ে পড়ন্ত বস্তুর সূত্রের সন্ধান – আধুনিক বিজ্ঞানের জনক গ্যালিলিও গ্যালেলেই এমনতর কর্মকাণ্ডের পেছনে তাঁর চিন্তা ও মননের যোগসূত্র কী? কীভাবে তিনি চিন্তা করতেন? কীভাবে প্রকৃতি পর্যবেক্ষণে করে বিজ্ঞানের উপসংহারে পৌঁছাতেন এসব নিয়েই ছিল এই আয়োজন।
সভায় গ্যালিলিও গ্যালেলেই এর বহুমুখী কর্মক্ষমতা নিয়ে দুইটি নিবন্ধ উপস্থাপন করেন নটরডেম বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শিক্ষার্থী নুওয়াইসির সুহাইল সৃষ্টি ও ইউনিভার্সিটি অফ এশিয়া প্যাসিফিকের আইন ও মানবাধিকার বিভাগের শিক্ষার্থী ফাহিম আহমেদ দিহান। তারা জানান-বিজ্ঞানী স্টিফেন হকিং এর মতে আধুনিক যুগে প্রাকৃতিক বিজ্ঞানের এত বিশাল অগ্রগতির পেছনে গ্যালিলিওর চেয়ে বেশি অবদান কেউ রাখতে পারেনি। গ্যালিলিও সর্বপ্রথম বিজ্ঞানের পরীক্ষা-পদ্ধতির প্রলণক করেন। তিনিই প্রথম টেলিস্কোপ দ্বারা সৌরজগত পর্যবেক্ষণ করে কোপার্নিকাসের তত্ত্বের সত্যতা প্রমাণ করেন। শুধু বিজ্ঞানী কিংবা সত্যসন্ধানী নয়, গ্যালিলিও পারদর্শী ছিলেন খেলনা তৈরিতে, গান-বাজনায়, কবিতা লিখায়, ছবি আঁকায়।