স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন, ধৈর্য সহকারে ঘরে অবস্থান করুনঃ বাহাউদ্দিন নাছিম

প্রকাশিত: ১০:২২ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১, ২০২০

স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন, ধৈর্য সহকারে ঘরে অবস্থান করুনঃ বাহাউদ্দিন নাছিম

করোনাভাইরাস মোকাবেলায় সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা ও ধৈর্য সহকারে ঘরে অবস্থান করার আহ্বান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম। আজ গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি এ আহ্বান জানান।

বিবৃতিতে বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন “বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা কর্তৃক ঘোষিত মহামারী করোনার প্রভাবে পুরো পৃথিবী এক সংকটময় সময় অতিক্রম করছে। ইতিমধ্যে পৃথিবীব্যাপী আট লক্ষাধিক লোক এ রোগে আক্রান্ত হয়েছেন এবং প্রায় ৪২ হাজার মানুষ মৃত্যুবরণ করেছেন। আমাদের এই প্রিয় মাতৃভূমি বাংলাদেশেও করোনার প্রাদুর্ভাব ঘটেছে, ইতিমধ্যে ৫৪ জন আক্রান্ত হয়েছেন এবং ৬ জন মৃত্যু বরণ করেছেন। বর্তমান এই সংকটকালীন পরিস্থিতি সাহসিকতা, ইতিবাচক মনোভাব, সচেতনতা ও ধৈর্যের সাথে মোকাবেলা করতে হবে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ইতিমধ্যে সরকার করোনাভাইরাস মোকাবেলায় প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ ও ব্যবস্থা নিয়েছে। প্রিয় দেশবাসী, করোনা ভাইরাস বিস্তার রোধে সরকারের নির্দেশনা মেনে চলুন। এই ভাইরাসের কোন প্রতিষেধক বা ঔষধ এখনও আবিষ্কৃত না হওয়ায় এই পরিস্থিতিতে করোনাভাইরাস বিস্তার প্রতিরোধে সচেতনতাই আমাদের নিজেকে, আমাদের পরিবার এবং সর্বোপরি দেশের মানুষকে সুরক্ষিত রাখবে। প্রয়োজন ছাড়া ঘরের বাইরে বের হবেন না, বাইরে বের হলে মানুষের ভিড় এড়িয়ে চলুন, হাঁচি কাশি দিতে হলে রুমাল বা টিসু পেপার দিয়ে নাক মুখ ঢেকে নিন, যেখানে সেখানে কফ থুথু ফেলবেন না, সাবান-পানি দিয়ে হাত ধোন, করমর্দন বা কোলাকুলি থেকে বিরত থাকুন, যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন।”

তিনি বলেন, “আমরা সকলেই জানি করোনা মূলত ছড়ায় Air Droplet এর মাধ্যমে। আক্রান্ত ব্যক্তিকে বা ভাইরাস আছে এমন কিছু স্পর্শ করলে, বা হাঁচি কাশির ফলে ছোঁয়াচে উপসর্গ আছে এমন কিছু স্পর্শ করে হাত না ধুয়ে নাকে, মুখে বা চোখে লাগালে করোনা ভাইরাস ছড়ায়। তাই আমাদের সবার সচেতন থাকতে হবে। আল্লাহ পাকের অশেষ রহমতে এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সরকারের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় বহির্বিশ্বের তুলনায় আমাদের দেশে করোনা এখন পর্যন্ত অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে আছে। আমাদের সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে ও সাহস রাখতে হবে।”

বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, “ইতিমধ্যে বঙ্গবন্ধু কন্যা দেশরত্ন শেখ হাসিনা করোনা প্রতিরোধে স্বল্পমেয়াদী ও দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা ও কর্মসূচি গ্রহণ করেছেন। করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে বর্তমান পরিস্থিতি বিবেচনায় জননেত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশের শ্রমজীবী মানুষের কথা চিন্তা করে ইতিমধ্যে রপ্তানিমুখী শিল্প শ্রমিকদের জন্য পাঁচ হাজার কোটি টাকার প্রণোদনা দিয়েছেন। অন্যদিকে গরিব ও দুস্থ মানুষের জন্য তিনি বিনামূল্যে গ্রামেগঞ্জে চাল পৌঁছে দিচ্ছেন এবং বিভিন্ন স্থানে ১০ টাকা মূল্যে চাল বিতরণের ব্যবস্থা করেছেন। তিনি সার্বক্ষণিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দিয়ে যাচ্ছেন। জননেত্রী শেখ হাসিনা দেশের প্রতিটি মানুষের নিরাপত্তা ও সুস্থতা নিশ্চিত করার জন্য সর্বসাকুল্য দিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন । “

তিনি বলেন, “আপনারা জানেন যে করোনা দুর্যোগ মোকাবেলায় আওয়ামী লীগের সচেতনতামূলক ও সামাজিক কর্মসূচি সারাদেশে নির্ভীকভাবে অব্যাহত রয়েছে। আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা সারাদেশে হতদরিদ্র ও খেটে খাওয়া মানুষের পাশে করোনা প্রতিরোধমূলক সামগ্রী, খাদ্যদ্রব্য ব্যবস্থা করে পাশে দাঁড়িয়েছে। প্রিয় দেশবাসী আমি আপনাদের কাছে অনুরোধ করবো আপনারা যার যার অবস্থান থেকে যতটুকুই পারেন মানুষের পাশে দাঁড়ান। বিশেষ করে সমাজের ধনী ও বিত্তবানদের প্রতি আমি আহবান করতে চাই মানবিক বিপর্যয়ে আপনারা জনগণের পাশে দাঁড়ান, করোনা মহামারীতে মানুষের প্রতি আপনার সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিন।”

বহাউদ্দিন নাছিম বলেন, “দেশবাসী আপনারা কোনোভাবেই কোনো প্রকার গুজবে কান দেবেন না, গুজব কে প্রশ্রয় দিবেন না। দেশের শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখার জন্য আওয়ামী লীগ কাজ করে যাচ্ছে। আপনারা আমাদেরকে সহায়তা করুন। করোনাভাইরাস মোকাবেলায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন, করোনা জনিত উপসর্গ দেখা দিলে আতঙ্কিত না হয়ে সরকারের দেয়া হটলাইন নাম্বার গুলো ব্যবহার করুন। প্রত্যেকে যার যার ঘরে থাকুন। ধৈর্য, সহনশীলতা ও সৎ সাহসের পরিচয় দিয়ে আমাদের সবার দায়িত্ব এই মহামারিতে সঠিক ভূমিকা পালন করা। আল্লাহ পাক আমাদের সবাইকে এই দুর্যোগ মোকাবেলার সৎ সাহস দান করুক ও এই মহামারী থেকে রক্ষা করুক। দেশবাসী আপনারা ভালো থাকবেন, সচেতন থাকবেন।”

ছড়িয়ে দিন