“স্যার ফজলে হাসান আবেদ” লিখেছেন আহমেদ বকুল

প্রকাশিত: ১০:২৪ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ৮, ২০২১

“স্যার ফজলে হাসান আবেদ” লিখেছেন আহমেদ বকুল

 

শাহাদত বখ্ত শাহেদ

প্রচ্ছদ ও অলংকরণ মোস্তাফিজ কারিগর।প্রকাশক মোস্তফা সেলিম। উৎস প্রকাশন। বইটির মূল্য ৩৫০/- টাকা।
তবে কমিশন বাদ দিলে মূল্য কমে আসবে।
বইটি উৎসর্গ করা হয়েছে আবুল মাল আবদুল মুহিত ও নাসির এ চৌধুরীকে।
লেখক একজন কবি এবং মিডিয়া ব্যক্তিত্ব। তিনি সিলেটের ইতিহাস ঐতিহ্য নিয়ে কাজ করে থাকেন। তার সেরা কাজ “সিলেটের পাঁচালী” যেটা বৃহত্তর সিলেটের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য নিয়ে নির্মাণ করা হয়েছে।এটি একটি ভিজুয়াল অনুষ্ঠান। যেটা একবার দেখলে সিলেটকে চেনা যাবে। এটা নির্মাণ করতে তাকে অনেক পরিশ্রম করতে হয়েছে। এবং তিনি সফলও হয়েছেন।
বকুল শুধু লেখক বা মিডিয়া ব্যক্তিত্ব না। তিনি একজন সমাজ সেবক। বিভিন্ন দুর্যোগ ও বিরূপ পরিস্থিতিতে তিনি জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সমাজ সেবায় ঝাঁপিয়ে পড়েন সমাজের নিরন্ন ও গৃহহীন মানুষের পাশে। তিনি সিলেটের ঐতিহ্যকে নানা ভাবে তোলে ধরার জন্য চেষ্টা করেন বিশ্ববাসীর কাছে।
আজ যে বইটি নিয়ে আলোচনা করবো সেটাও তার এই চিন্তার ফসল। স্যার ফজলে হাসান আবেদকে চেনেননা আমাদের দেশে তথা বহিবিশ্বে খুব কমই লোক আছেন।
এই কিংবদন্তী মানুষের জন্ম বৃহত্তর সিলেটের হবিগঞ্জ জেলার বানিয়াচঙ্গ নামক গ্রামে। ফজলে হাসান আবেদ মানব সম্পদ উন্নয়ন,স্বাস্থ্য সেবা,শিক্ষা ও অর্থনীতিতে যে ভূমিকা রেখে গেছেন তার মত লোক বাংলাদেশ তথা পৃথিবীতে বিরল। তার উল্লখযোগ্য কাজের মধ্যে অন্যতম “ব্র্যাক এনজিও” “আড়ং” “ব্র্যাক ইউনিভার্সিটি” ব্র্যাক ব্যাংক লিমিটেড” অন্যতম।
এই বইটি যদিও শিশু-কিশোর উপযোগী কিন্তু বকুল স্যার ফজল হাসান আবেদকে যেভাবে উপস্থাপন করেছেন তা যে কোন বয়সের পাঠকরা পড়ে আবেদের জীবন ও তার কর্ম সম্পর্কে সহজে বুঝতে ও জানতে পারবেন।
স্যার ফজলে হাসান আবেদ জীবনের শুরু থেকে মৃত্যুর আগ মূহুর্ত পর্যন্ত যে সকল কর্মকাণ্ড করে গেছেন তা এ বইটিতে সুন্দর ভাবে ফোটে উঠেছে। বকুল বৈঠকী ঢংগে একজন বুড়োদাদুর গল্প বলার মাধ্যমে আবেদের জীবনী উপস্থাপন করেছেন খুব দক্ষ ভাবে। তিনটি বৈঠকের মাধ্যমে দাদু উপস্থাপন করেছেন ফজলে হাসান আবেদের জীবন কাহিনি। কাহিনির সাথে চার রংয়ের অলংকরণও আরো প্রাণবন্ত করে তুলেছে কাহিনিকে।
বুড়োদাদুর মুখে এমন বাস্তব গল্প নাতি-নাতনীরা কোনদিন শুনেনি। তারা সব সময় ভূত পেত্নীর গল্প শুনেই বড়ো হয়েছে এমন বাস্তব ও শিক্ষনীয় গল্প তারা কোনদিন দেখেনি ও শুনেনি।
গল্পের শিশুকিশোর চরিত্র যেমন রিমা,ঋতু, স্বপ্না,
তুহিন,ঐশী,ও ইভান তারা গল্প শোনে শোনে দাদুকে ব্যাতিব্যস্ত করে তুলছে বিভিন্ন প্রশ্নে। দাদু একে একে উত্তর দিয়ে তাদের উৎসাহী করে তুলেছেন। স্যার ফজলে হাসান আবেদ যে একজন সফল মানুষ তা বইটি না পড়লে বুঝা যাবেনা। প্রত্যেক শিশু-কিশোর এবং বড়েদেরও এই বইটি পড়া উচিত বলে আমি মনে করি।
বইটি পাওয়া যাবে দেশের সৃজনশীল বইয়ের দোকানে এবং রকমারিতে। লেখক জানান পরবর্তীতে “আড়ং” এর বিভিন্ন আউটলেটে এ বইটি পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। বইটির বহুল প্রচার ও পাঠকপ্রিয়তা পাক এই কামনা থাকলো। জয়তু “স্যার ফজলে হাসান আবেদ” ও লেখক আহমেদ বকুল।
বি.দ্র : লেখকের পরবর্তী বই সিলেটের ইতিহাস ও ঐতিহ্যের আলোকে রচিত ” সুরমা পাড়ের কাব্যে”।
৮ এপ্রিল ২০২১
সিলেট।

Calendar

April 2021
S M T W T F S
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
252627282930  

http://jugapath.com