হলুদ সাংবাদিকতার স্বীকার সিলেটের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান

প্রকাশিত: ১১:৫৪ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ২৯, ২০১৭

হলুদ সাংবাদিকতার স্বীকার সিলেটের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান

বিশেষ প্রতিবেদক :: সিলেটে বিভিন্ন সু-নামধন্য ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে নিজেদের ফায়দা হাসিলের জন্য ভূইফোড় সাপ্তাহিক ও অনলাইন পত্রিকায় মিথ্যা সংবাদ প্রকাশ করে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালিকগণকে হয়রানির চেষ্টা করছে তারা।

কুৎসাচার চালানোর জন্য নিজেদের সংবাদমাধ্যম অন্য প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ব্যবহাহৃত এই ‘হলুদ সাংবাদিকতা’কে অত্যন্ত বিপজ্জনক বলে অভিহিত করেছেন সিলেটের বিশিষ্ট ব্যক্তিরা।

তারা বলেছেন, সংবাদমাধ্যম হলো সাধারণ মানুষের সত্যতা-তথ্য জানার একটি নির্ভরযোগ্য উৎস। সেই গণমাধ্যমে দেশের স্বনামধন্য কোনো প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে একতরফা অপপ্রচারের অধিকার নেই। এতে পারস্পরিক বিদ্বেষ ছড়িয়ে পড়তে পারে। তাদের সামান্য মোচলেকা ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে ব্যবসা-বাণিজ্যের সৌহার্দ্যপূর্ণ পরিবেশ। সমাজে বিদ্বেষ ছড়িয়ে দিতেই এমন অপতৎপরতা চালানো হচ্ছে বলে মনে করছেন ক্ষতিগ্রস্থ ব্যবসায়ীরা। এতে মিথ্যা অপবাদে আক্রান্ত হয়ে পড়েছেন প্রতিষ্ঠানের মালিকরা। এসব পত্রিকাগুলো প্রায়ই বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে , পেন্টের পকেটে পত্রিকা রেখে হলুদ সাংবাদিকতা প্রয়োগ করে নিজেদের সর্বশক্তি নিয়োজিত করে ব্যবসায়ীদের হয়রানীর অভিযোগ রয়েছে।

জানা গেছে, এইসব হলুদ সাংবাদিকতার শিকার সিলেটের অনেক ব্যবসায়ীসহ নিরীহ মানুষও। সাংবাদিক নামধারী কিছু ব্যক্তি সাধারণ মানুষকে জিম্মি করে অনৈতিক সুযোগ-সুবিধা হাসিল করছেন। আবার সিলেটের অনেক সম্পদশালী অসাধু ব্যক্তিও সমাজে নিজেদের প্রভাব বিস্তার কিংবা অন্যকোনো সুবিধা আদায় করতে অনেক সময় ‘মিডিয়া হাউস’ বানিয়ে ফায়দা লুটছেন।

অভিযোগ উঠেছে, পুলিশ বা প্রশাসনের অনেকে আবার পত্রিকায় সংবাদ হওয়ার ভয়ে ওইসব সংবাদের সত্য-মিথ্যা যাচাই না করে উল্টো যার নামে সংবাদ হয় তাকেই চেপে ধরেন। এ ধরনের অপসাংবাদিকতা বা হলুদ সাংবাদিকতার কবলে পড়ে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন সু-নামধন্য একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালিক। হলুদ সাংবাদিকতায় এভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে সিলেটসহ দেশের হচ্ছে অর্থনীতি। অথচ এই প্রতিষ্টানের পণ্য দেশের সর্বত্র সরবরাহ করা হচ্ছে।

সংগত কারণেই ওই ধরনের মিডিয়া হাউসের সম্পদশালী মালিক কিংবা সাংবাদিক নামধারীদের শাস্তি দাবি করেছেন সিলেটসহ দেশের ব্যবসায়ী ও গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব থেকে শুরু করে নানা শ্রেণি-পেশার মানুষ।

সুনির্দিষ্ট তথ্য না থাকায় সংবাদটি চলমান রয়েছে…………….।